kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

অ্যানফিল্ডে এ কোন লিভারপুল!

৬ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অ্যানফিল্ডে এ কোন লিভারপুল!

যে দলটি ঘরের মাঠে আগের ৬৮ ম্যাচ অপরাজিত, সেই মাঠেই কিনা তারা টানা পাঁচ ম্যাচ হেরে গেল। জানুয়ারিতে বার্নলির বিপক্ষে হার দিয়ে শুরু। এরপর একে একে ব্রাইটন, ম্যানচেস্টার সিটি, এভারটনের পর পরশু রাতে চেলসির কাছে হেরে নীল লাল দুর্গ। ম্যাচজুড়ে অলরেডদের খুঁজে পাওয়া যায়নি। চ্যাম্পিয়নদের মাঠে চেলসি সাবলীল। পুরো ম্যাচ আধিপত্য দেখিয়ে ম্যাসন মাউন্টের গোলে ১-০তে জয় নিয়ে তারা ফিরেছে।

ইয়ুর্গেন ক্লপের দুঃসময় যখন চলছে, তখন তাঁরই স্বদেশি টমাস টুখেলের দিন যাচ্ছে বেশ। প্যারিস সেন্ত জার্মেই থেকে চেলসির দায়িত্ব নেওয়ার পর তাঁর অধীনে এখন টানা ১০ ম্যাচ অপরাজিত ব্লুরা। আর পরশুর জয়ে পয়েন্ট টেবিলের চারেও উঠে এসেছে লন্ডনের দলটি। যেখানে চ্যাম্পিয়নদের এখন চ্যাম্পিয়নস লিগে সুযোগ পাওয়া নিয়ে শঙ্কা, কারণ এই হারে টেবিলের সাতে নেমে গেছে যে অলরেডরা। পরশু ম্যাচের শুরু থেকে গোলের জন্য হন্যে হয় সফরকারী চেলসি। ১৬ মিনিটেই সেজার এসপিলিকুয়েতার ক্রসে টিমো ভেরনার বক্সে বল পেয়ে গিয়েছিলেন, কিন্তু জার্মান স্ট্রাইকার সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেননি। গোলরক্ষক আলিসন বেকারের হাতে বল তুলে দিয়েছেন। পরে জজিনিয়োর লম্বা পাসে ভেরনারই বল জালে পাঠিয়েছিলেন, কিন্তু ভিএআর-এ অফসাইডের সিদ্ধান্তে বাতিল হয় তা। অন্য প্রান্তে মোহামেদ সালাহর ক্রসে ডি বক্সে বল পেয়েও পোস্টে শট নিতে পারেননি সাদিও মানে।

কিন্তু বিরতি পর্যন্ত আর অপেক্ষা করেনি চেলসি। নিজেদের অর্ধ থেকে এনগোলো কান্তের পাঠানো লং বল ধরে বাঁ দিক দিয়ে ঢুকে অসাধারণ এক গোলে সফরকারীদের এগিয়ে দেন মাউন্ট। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান দ্বিগুণ হতে পারত হাকিম জিয়াশের শট অ্যান্ড্রু রবার্টসন গোললাইন থেকে ফিরিয়ে না দিলে। পুরো ম্যাচে চেলসির ১১ শটের পাঁচটিই ছিল লক্ষ্যে, যেখানে লিভারপুলের অনটার্গেট একটি মাত্র শট ম্যাচের শেষ দিকে।  স্পেনে পরশু রাতে লেভান্তেকে ২-১ গোলে হারিয়ে কোপা দেল রে-র ফাইনাল নিশ্চিত করেছে অ্যাথলেতিক বিলবাও। এএফপি

মন্তব্য