kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

ইনিংসে জয় ইমার্জিং দলের

এক ম্যাচেই কত প্রাপ্তি তানভীরের

৫১ রানে ৮ উইকেট নেওয়া বোলিংয়ে ক্যারিয়ারে প্রথমবার ম্যাচে ১০ উইকেটও পেলেন। এক ম্যাচ থেকেই ১৩ উইকেট তুলে নেওয়া তানভীরের ঘূর্ণিতে এক দিন বাকি থাকতেই ইনিংস ও ২৩ রানের জয় স্বাগতিকদের।

১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : এর আগে ১১টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলে তাঁর শিকার সংখ্যা ছিল মাত্র ১৯টি। ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়ার সাফল্যও ছিল না কোনো। না থাকা প্রায় সব কিছুই তানভীর ইসলাম প্রাপ্তির খাতায় টুকলেন আয়ারল্যান্ড উলফসের বিপক্ষে এক ম্যাচ থেকেই।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে চার দিনের আন-অফিশিয়াল টেস্ট ম্যাচের প্রথম দিনই বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের এই বাঁহাতি স্পিনার ৫৫ রানে ৫ উইকেট নিয়ে করেন ক্যারিয়ারসেরা বোলিং। পরের ইনিংসে নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ারও শুরু ম্যাচের দ্বিতীয় দিন। ৪ উইকেটে ৩৫ রান নিয়ে ইনিংস হারের শঙ্কায় থাকা আইরিশ ‘এ’ দলের তিন ব্যাটসম্যানই সেদিন তাঁর শিকার। গতকাল এর সঙ্গে আরো ৫ উইকেট যোগ করলেন তানভীর। তাতে ৫১ রানে ৮ উইকেট নেওয়া বোলিংয়ে ক্যারিয়ারে প্রথমবার ম্যাচে ১০ উইকেটও পেলেন। এক ম্যাচ থেকেই ১৩ উইকেট তুলে নেওয়া এই তরুণের ঘূর্ণিতে এক দিন বাকি থাকতেই ইনিংস ও ২৩ রানের জয় স্বাগতিকদের।

ইমার্জিং দলকে আরেকবার ব্যাটিংয়ে পাঠাতে তৃতীয় দিনে আইরিশদের করতে হতো আরো ১২৭ রান। কিন্তু বাকি ৬ উইকেট হারিয়ে তারা যোগ করতে পারে ১০৪ রান। অধিনায়ক হ্যারি টেক্টর ও কার্টিস ক্যাম্পারের জুটিতে দিনের শুরুটা অবশ্য আইরিশরা ভালোই করেছিল। পঞ্চম উইকেটে তাঁরা যোগ করে ফেলেন ৬০ রান। তবে ইমার্জিং দলের অধিনায়ক সাইফ হাসান তাঁর অফস্পিনে ক্যাম্পারকে (২২) ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙার পর তানভীর উলফসের আর কোনো ব্যাটসম্যানকেই দাঁড়াতে দেননি। ১৩৭ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ৫৫ রান করা টেক্টরকে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে ফেলে ম্যাচে নিজের দশম উইকেট নেন তানভীর। ইনিংস হার এড়ানোর আশায় থাকা আইরিশরা তাই শেষ ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলে মাত্র ৪৬ রানেই। সফরকারীদের দ্বিতীয় ইনিংসও গুটিয়ে যায় ১৩৯ রানে। ১০৬ রানে ১৩ উইকেট নেওয়ার পর অবধারিতভাবেই ম্যাচসেরার পুরস্কারটি বরাদ্দ ছিল তানভীরের জন্য।

মন্তব্য