kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

আবার কিংস-আবাহনী

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আবার কিংস-আবাহনী

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বসুন্ধরা কিংস সব ম্যাচের ফেভারিট। তাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে শিরোপার দৌড়ে ফেরার লড়াইয়ে নামছে আবাহনী লিমিটেড। ফিরতে হলে এই ম্যাচে জয় ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। ওদিকে আজ জিতলে প্রিমিয়ার লিগে আরেকবার কিং হয়ে ওঠার পথ খুলে যাবে বসুন্ধরা কিংসের সামনে।

বসুন্ধরা কিংস ১১ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে এখনই অনেকটা এগিয়ে। ২২ পয়েন্ট নিয়ে যুগ্মভাবে দ্বিতীয় স্থানে আছে শেখ জামাল ও আবাহনী। ৯ পয়েন্টের ব্যবধান ঘুচিয়ে শিরোপার দৌড়ে ফেরার দারুণ সুযোগ আবাহনীর। আকাশি-নীলের কোচ মারিও লামোস মনে করেন, ‘এটা আমাদের জন্য সুযোগ। কিন্তু আমি যতই মুখে বলি, মাঠে খেলতে হবে ফুটবলারদের। তাদের ওপর নির্ভর করছে আমাদের ভবিষ্যৎ।’ খেলোয়াড়রাই কারিগর, কিন্তু চোট-আঘাতে জর্জর আবাহনীর বেঞ্চ বড় দুর্বল। বিশেষ করে ফরোয়ার্ড লাইনে নাবিব নেওয়াজের ইনজুরি তাদের ভোগাচ্ছে। এখন শুধু ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড তোরেসের ওপর নির্ভর করতে হচ্ছে। তাই গোলসংখ্যা কমে গেছে তাদের।

অন্যদিকে অপরাজিত বসুন্ধরা কিংস যেন নিখুঁত ছবি। বেঞ্চের শক্তিও প্রবল। তাই ১১ ম্যাচে মাত্র ২ পয়েন্ট হারিয়েছে শেখ জামালের সঙ্গে ড্র করে। কোচ অস্কার ব্রুজোনও দারুণ তৃপ্ত, ‘ছেলেদের নিয়ে যত বলি কম বলা হবে। ওদের পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতায় আজ আমরা এতটা এগিয়ে। এই ম্যাচেও পারফরম্যান্সের সেই ধারা দেখতে চাই। এটা তাদেরকে বলে দিতে হবে না, আবাহনীর সঙ্গে সব সময় তারা উজ্জীবিত ফুটবল খেলে।’ লিগে আগের লড়াইয়ে আবাহনী প্রথম গোল করে চমকে দিলেও শেষ পর্যন্ত জিতেছে গতবারের চ্যাম্পিয়নরা।

কিংস সাম্রাজ্যের অধিপতি রবসন রোবিনহো। কোস্টারিকান বিশ্বকাপার ড্যানিয়েল কলিনড্রেসের যোগ্য উত্তরসূরি হয়েই এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড প্রায় প্রত্যেক ম্যাচেই গড়ে দিচ্ছেন কিংসের সামনে এগোনোর পথ। ১১ ম্যাচে ১২ গোল করে তিনি এখন যুগ্মভাবে ওমার জোবের সঙ্গে শীর্ষে আছে গোলদাতার তালিকায়। গোল করা ছাড়াও করানোয় তাঁর জুড়ি নেই। তাঁকে ম্লান করে দিতে পারেন শুধু একজনই—রাফায়েল অগাস্তো। মাঝমাঠের এই ব্রাজিলিয়ান প্লেমেকার যত দিন যাচ্ছে ততই মানিয়ে নিচ্ছেন নিজেকে। তাঁর পায়ে মাঝমাঠের দখল থাকলে আর সোহেল রানা-সাদরা তাঁকে ঠিকঠাক সঙ্গ দিতে পারলেই আকাশি-নীলের আধিপত্য করার সুযোগ থাকে।

নইলে কিংসের আধিপত্যই বজায় থাকবে। তখন শিরোপা লড়াই হয়ে যাবে আরো একপেশে। লড়াইটাকে জমজমাট করতে পারে শুধু ছয়বারের চ্যাম্পিয়নরা।

মন্তব্য