kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

রিয়ালকে জেতালেন মেন্দি

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রিয়ালকে জেতালেন মেন্দি

জিনেদিন জিদানের মুখে অবিশ্বাসের হাসি, তার সঙ্গে মিশে স্বস্তি, আনন্দ। তিনি কি ভাবতে পেরেছিলেন আতালান্তার মাঠে কঠিন হয়ে ওঠা ম্যাচটা জেতাবেন ফেরলান মেন্দি! তাও সেই দুর্দান্ত গোল, বক্সের বাইরে থেকে ডান পায়ে বাঁক খাওয়ানো শটে। আতালান্তা গোলরক্ষক উড়েও সেটির নাগাল পাননি।

সেই গোল আবার কোন সময়ে! নির্ধারিত সময়ের মিনিট চারেক আগে, যখন ম্যাচে গোলশূন্য সমতা। শেষ ষোলোর আগের ম্যাচগুলোয় বার্সেলোনা, সেভিয়া, অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ সবাই হেরে গেছে। জিদানের দল তখন না হারলেও জয়হীন থাকার পথে। সেটাও বাড়াবাড়িই হতো, কারণ প্রতিপক্ষ দল যে ১৭ মিনিটেই ১০ জনের দল হয়ে পড়েছিল। কিন্তু রিয়ালও যেন ছিল নখদন্তহীন। বল পজিশন রাখা, সুযোগ তৈরি সবই হচ্ছিল, কিন্তু গোল হচ্ছিল না। স্ট্রাইকারহীন যে! করিম বেনজেমা নেই, নেই রোদ্রিগো, রামোস। ভিনিসিয়াস জুনিয়র ও মার্কো আসেনসিওকে নিয়ে ইসকো খেলছিলেন ফলস নাইন হিসেবে। বেঞ্চেও এক মারিয়ানো দিয়াজ ছাড়া পরিচিত মুখ নেই। প্রথমার্ধে বেশ কিছু শট উড়িয়ে মারার পর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ভিনিসিয়াসকে তুলে দিয়াজকে নামানো হয়। পরে উঠিয়ে নেওয়া হয় নিষ্প্রভ আসেনসিওকে। মিডফিল্ডত্রয়ী কাসেমিরো, টনি ক্রস, লুকা মডরিচ চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন, কিন্তু গোলের মানুষ নেই। ৮৬ মিনিটে লেফটব্যাক মেন্দি সেই অভাব মেটালেন। মডরিচের কাছ থেকে পাস পেয়েই বক্সের একটু বাইরে থেকে তাঁর অপেক্ষাকৃত দুর্বল ডান পায়ে করলেন অবিশ্বাস্য গোলটি। রিয়াল পেল প্রতিপক্ষের মাঠে মূল্যবান জয়। এর আগে মেন্দিকে ফাউল করেই লাল কার্ড দেখেছে রেমো ফ্রুয়েলার। যদিও সেটি লালের বদলে হলুদ হতে পারত কি না, ম্যাচ শেষে সেই বিতর্ক হয়েছে। কারণ এমন নয় যে মেন্দি শেষ খেলোয়াড় ছিলেন বা তাঁর গোলের পরিষ্কার সুযোগ ছিল।

বুদাপেস্টে বরুশিয়া মুনশেন গ্লাডবাখকে অবশ্য তেমন কোনো সুযোগই দেয়নি পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটি। ম্যাচে আধিপত্য দেখিয়ে বার্নার্দো সিলভা ও গ্যাব্রিয়েল জেসুসের লক্ষ্যভেদে ২-০ গোলের জয় নিয়ে তারা ফিরেছে। করোনায় ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার কারণে ম্যাচটা জার্মানির বদলে হয়েছে হাঙ্গেরিতে। বিবিসি

মন্তব্য