kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৩ রজব ১৪৪২

বায়ো-বাবল নিয়ে তামিমের দুর্ভাবনা

২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : করোনাকালে মাঠের সঙ্গে বাইরেও লড়াই করতে হচ্ছে ক্রিকেটারদের। কোয়ারেন্টিন আর বায়ো-বাবল মিলিয়ে সাধারণ একটি সিরিজের স্থায়িত্ব প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যাচ্ছে। তাতে দীর্ঘ মেয়াদে ক্রিকেটারদের অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়ার শঙ্কা থেকেই সম্ভবত ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে খেলানোর পক্ষে মত দিয়েছেন তামিম ইকবাল, বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের নিয়মিত অধিনায়ক হিসেবে যাঁর শুরুটা হয়েছে দারুণ।

বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রস্তুতি চলাকালেও পরিবারের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ নেই। বাংলাদেশ দলই যেমন গত অক্টোবর থেকে একরকম হোটেলবন্দি। বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ও বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ থেকে চলমান ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ মিলিয়ে গত প্রায় তিন মাসে হাতে গোনা কয়েকটি দিন পরিবারের সঙ্গে কাটিয়েছেন তামিম ইকবালরা। এভাবে চলতে গেলে মানসিক অবসাদ গ্রাস করতে পারে ক্রিকেটারদের। গতকাল ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ৩-০ দিয়ে অধিনায়কত্বের ক্যারিয়ার শুরু করা তামিমের উপলব্ধি, ‘সত্যি বলতে কি অভিজ্ঞতা (বায়ো-বাবল) ভালো কিছু না। কারণ পরিবার একই শহরে আছে, তবু দেখা করার সুযোগ নেই। এটা ভালো লাগার কথা না। তবে এটা বুঝি যে মহামারির কারণে সারা বিশ্বই এভাবে চলছে। আমাদেরও চেষ্টা করতে হবে এটার সঙ্গে মানিয়ে নিতে। কিন্তু এভাবেই যদি লম্বা সময় চলতে থাকে, সে ক্ষেত্রে কিছু খেলোয়াড়কে কিছু ফরম্যাট থেকে বিশ্রাম দেওয়া যেতে পারে। নয়তো এভাবে টানা খেলতে থাকলে ভালো কিছু হবে না।’

তাই নিয়মিত অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক সিরিজ জিতেও দুশ্চিন্তার কথা জানিয়েছেন তামিম। এর আগে-পরে অবশ্য সতীর্থদের নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন তিনি, ‘সিরিজের ফলে অবশ্যই সন্তুষ্ট। সবার মাঝে ভালো করার ক্ষুধাটা দেখেছি।’ বেশি সন্তুষ্ট তিনি বোলারদের সাফল্যে, ‘একটা সময়ে আমরা ফাস্ট বোলার খুঁজতাম। কিন্তু এখন ডাগআউটেই এক-দুজন ভালো বোলারকে বসে থাকতে হয়। অভিষেকেই হাসান মাহমুদ দারুণ করেছে। রুবেল ও তাসকিন ভালো বোলিং করেছে। ফিজ (মুস্তাফিজ) আর সাইফউদ্দিনকে নিয়েও কোনো অভিযোগ নেই (হাসি)।’ কিন্তু দুই ফিফটিসহ নিজে সিরিজ সর্বোচ্চ রানের মালিক হয়েও ব্যাটিং নিয়ে কিছু আক্ষেপ আছে তামিমের, ‘আগের ম্যাচ দুটি ৭-৮ উইকেটের ব্যবধানে জিততে পারলে বেশি খুশি হতাম। আর আজকে আমাদের অন্তত একটি সেঞ্চুরি হতে পারত। সুযোগও এসেছিল। কিন্তু আমরা পারিনি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা