kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৩ রজব ১৪৪২

সেই ব্রিসবেন সেই লাবুশানে

১৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সেই ব্রিসবেন সেই লাবুশানে

লাবুশানের ১০৮

তাঁর জন্ম দক্ষিণ আফ্রিকায়। তবে ব্রিসবেনের সঙ্গে মার্নাস লাবুশানের সম্পর্কটা গভীর। ২০১০ সালে ব্রিসবেনের গ্যাবায় ছিলেন হটস্পট অপারেটর। ৯ বছর পর সেই ভেন্যুতে পেয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট ফিফটি। ২০১৯ সালের নভেম্বরে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরিও সেখানে। প্রায় এক বছর ছিলেন সেঞ্চুরিখরায়। সেটাও গতকাল কাটল ব্রিসবেনে। লাবুশানের ১০৮ রানে ভর করে সিরিজের চতুর্থ টেস্টের প্রথম দিন অস্ট্রেলিয়া শেষ করেছে ৫ উইকেটে ২৭৪ রানে। একটা সময় স্কোরটা ছিল ৩ উইকেটে ২০০। সেখান থেকেই অনভিজ্ঞ বোলাররা ম্যাচে ফিরিয়েছেন ভারতকে। তিন তিনটি ক্যাচ না ছাড়লে দিনটি হতে পারত আজিঙ্কা রাহানের দলেরও। অধিনায়ক টিম পাইন ৩৮ আর ক্যামেরন গ্রিন আজ ব্যাট করতে নামবেন ২৮ রান নিয়ে।

সিডনি টেস্ট বাঁচানোর দুই নায়ক হনুমা বিহারি ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন ব্রিসবেনে নেই চোটের কারণে। নেই জাসপ্রিত বুমরাহ আর রবীন্দ্র জাদেজাও। অভিষেক হয়েছে থাঙ্গারাসু নাটারাজন ও ওয়াশিংটন সুন্দরের। একাদশে ফিরেছেন শার্দূল ঠাকুর আর মায়াঙ্ক আগারওয়াল। অনভিজ্ঞ এই বোলাররাই ১৭ রানে ফেরান অস্ট্রেলিয়ান দুই ওপেনারকে। মোহাম্মদ সিরাজের প্রথম ওভারেই ডেভিড ওয়ার্নার ক্যাচ দেন রোহিত শর্মাকে। মার্কাস হ্যারিস ৫ রান করে ফেরেন শার্দূল ঠাকুরের বলে। সেখান থেকেই হালটা ধরেন মার্নাস লাবুশানে।

লাবুশানে জীবন পান দুইবার। ৩৭ রানে থাকতে আজিঙ্কা রাহানে আর ৪৮ রানে ক্যাচ ফেলেন চেতেশ্বর পূজারা। দুটি উপহার কাজে লাগিয়ে টেস্টে করেন পঞ্চম সেঞ্চুরি। ম্যাথু ওয়েডের সঙ্গে তাঁর ১১৩ রানের জুটি ম্যাচের লাগাম এনে দিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার হাতে। কিন্তু ৩ উইকেটে ২০০ থেকে ২১৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা