kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ফিটনেসের লড়াইয়ে মাশরাফি

৬ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ফিটনেসের লড়াইয়ে মাশরাফি

দেখেন, অনেক দিন খেলার বাইরে আছি। মাঝখানে শরীরও খারাপ (করোনা) ছিল লম্বা সময়। তাই ফিটনেস নিয়ে সেভাবে কাজ করতে পারিনি। সেদিন প্র্যাকটিসে গিয়েছিলাম নিজের ফিটনেস কোন জায়গায় আছে, সেটা বুঝতে।

ক্রীড়া প্রতিবেদক : মিরপুর সি ব্লকের রাজনৈতিক অফিসটির ভেতরে-বাইরে দর্শনার্থীদের ভিড়। কী ব্যাপার? মাননীয় সংসদ সদস্য নিচতলার অফিসকক্ষে নেই, সাততলা বাড়িটির ওপরতলায় জিম বানিয়েছেন। ক্রিকেটে ফেরার প্রাথমিক প্রস্তুতির জন্য গড়ে তোলা জিমে ঘাম ঝরিয়ে সাংসদ নেমে আসেন দুপুর ২টায়।

তিনি মাশরাফি বিন মর্তুজা। কয়েক দিন আগে প্র্যাকটিস করতে মিরপুরের একাডেমি মাঠে গিয়েছিলেন। কয়েক ওভার বোলিং করে বুঝতে পেরেছেন চলমান বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের জন্য সৃষ্ট ‘বায়ো-বাবলে’ এভাবে হুট করে ঢুকে পড়া ঠিক হয়নি। বুঝতে পেরেই বেরিয়ে এসেছেন। সেই থেকে করোনার প্রভাব কাটিয়ে ওঠার পর নিজস্ব জিমে ওজন কমানোয় ব্যস্ত মাশরাফি আবার ফিরে গেছেন সেখানে।

‘দেখেন, অনেক দিন খেলার বাইরে আছি। মাঝখানে শরীরও খারাপ (করোনা) ছিল লম্বা সময়। তাই ফিটনেস নিয়ে সেভাবে কাজ করতে পারিনি। সেদিন প্র্যাকটিসে গিয়েছিলাম নিজের ফিটনেস কোন জায়গায় আছে, সেটা বুঝতে’, রাজনৈতিক কর্মীদের কাছ থেকে কিছুটা সময় চেয়ে নিয়ে মাশরাফি কথা বললেন এ প্রতিবেদকের সঙ্গে।

মাশরাফি সম্পর্কে একটা ‘মিথ’ প্রচলিত আছে দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে। এই যেমন তাঁকে দলে চাওয়ার পেছনে জেমকন খুলনার ম্যানেজার নাফিস ইকবাল অবলীলায় বলে দেন, ‘মাশরাফি এমন একটি নাম, এমন একজন খেলোয়াড়, যাঁকে যেকোনো দলই চাইবে।’ তারও আগে বিসিবির কাছে মাশরাফিকে চেয়ে বিসিবি বরাবর আবেদন জমা দেওয়া ফরচুন বরিশালের আবেগ—এক পায়ে খেললেও মাশরাফি দলের জন্য অনুপ্রেরণাদায়ী। সর্বশেষ ড্রাফটের বাইরে থেকে মাশরাফিকে নেওয়ার জন্য নাকি আগ্রহ প্রকাশ করেছে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীও।

এ অবস্থায় লটারিতে জয়ী দলই পাবে মাশরাফিকে। কিন্তু সেই লটারি কবে হবে—কেউই জানে না। ‘বিসিবির একটা প্রটোকল আছে। প্লেয়ার্স ড্রাফটের আগে সবাইকেই ফিটনেস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হয়েছে। বিসিবিও নিশ্চয় আমার জন্য ফিটনেস টেস্টের ব্যবস্থা করবে’, অপেক্ষায় আছেন মাশরাফি। তবে গতকাল দুপুরেও ফিটনেস টেস্ট পরীক্ষা কবে কোথায় হবে, জানেন না মাশরাফি। ফিটনেস টেস্টের পর লটারি—এসব আনুষ্ঠানিকতা শেষ হতে না আবার চলমান টুর্নামেন্টই শেষ হয়ে যায়! নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ফ্র্যাঞ্চাইজি উত্তেজিত, ‘এটা বিসিবির টুর্নামেন্ট, ঠিক আছে। কিন্তু দল তো গড়েছি আমরা। খেলোয়াড় নেওয়ার স্বাধীনতা আমাদের। এটা জাতীয় লিগ কিংবা বিসিবিএল হলে না হয় কথা ছিল। আমরা যদি অর্ধেক ফিট মাশরাফিকে নিতে চাই, তাহলে বোর্ড আপত্তি করবে কেন?’

মাশরাফির অবশ্য এ নিয়ে বাহাস করার অভিপ্রায় নেই। ‘বিসিবি একটা প্রটোকল ঠিক করেছে এই টুর্নামেন্টের জন্য। তবে আমি এটুকু বলতে পারি, যদি ফিটনেস টেস্ট হয় খুব খারাপ করব না। বিপ টেস্টে আমি কখনোই খারাপ করিনি। ফিট অবস্থায় ১২ করেছি। এখন ১০-এর ওপর তো কবরই’, এই মাশরাফির চিন্তা অবশ্য অন্যখানে, ‘অনেক দিন পর সেদিন ৪ ওভার বোলিং করেছি। অনেক দিন পর তো, তাই বেশ কয়েকটা নো বল হয়েছে। স্টেপিং ঠিক হচ্ছিল না। যদিও জানি কয়েক দিন বোলিং করলেই এ সমস্যা কেটে যাবে।’ একই সঙ্গে সময় পেলে কাটবে ফিটনেস সমস্যাও। ‘আমি যদি বলি এখন আমি পুরোপুরি ফিট—তাহলে সেটা বাড়িয়ে বলা হবে। সপ্তাহ তিনেক ঠিকঠাক প্র্যাকটিস করতে পারলে পুরোপুরি ম্যাচ ফিট হয়ে উঠব ইনশাআল্লাহ’, আশাবাদ মাশরাফির।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা