kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৭ মাঘ ১৪২৭। ২১ জানুয়ারি ২০২১। ৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

পিছিয়ে থাকলেন জিমিরা

৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পিছিয়ে থাকলেন জিমিরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাসেল মাহমুদ (জিমি), ফরহাদ আহমেদ, সারোয়ার হোসেন, মইনুল হোসেন, রোমান সরকার, খোরশেদুর রহমান, অসীম গোপ, কামরুজ্জামান—পুরো জাতীয় দলের লাইনআপ নৌবাহিনী হকি দলে। আগামী মার্চে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে এ খেলোয়াড়রাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবেন। অথচ মাঠে ফেরার দিক দিয়ে তাঁরাই সবচয়ে পিছিয়ে থাকলেন। করোনার পর মাঠে গড়ানো হকির প্রথম টুর্নামেন্টটিতেই যে খেলতে পারেননি তাঁরা। নৌবাহিনী দলই অংশ নেয়নি সেই প্রেসিডেন্টস কাপে।

চ্যাম্পিয়নস ট্রফি নিয়ে ভাবনায় থাকা জাতীয় দলের কোচ মাহবুব হারুনের জন্য এটা মোটেও প্রীতিকর কিছু হয়নি, ‘জিমিরা এ টুর্নামেন্টটি খেলতে পারলে এগিয়ে থাকতে পারত। এখন ওদের বিজয় দিবস টুর্নামেন্ট দিয়ে শুরু করতে হবে। যারা প্রেসিডেন্ট কাপ খেলেছে, তারা অবশ্যই এগিয়ে গেছে ফিটনেস এবং খেলার দিক দিয়েও। নৌবাহিনী দল অনুশীলনে আছে জানি। কিন্তু টুর্নামেন্টের ব্যাপার তো আলাদা, সেখানে ফিটনেসের পরীক্ষাটি হয়ে যায়।’ জিমিদের সেই পরীক্ষা এ মাসের শেষ দিকে হতে যাওয়া বিজয় দিবস টুর্নামেন্ট। হারুন জানিয়েছেন, সেই আসর দেখে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির প্রাথমিক দল চূড়ান্ত করবেন তাঁরা। ‘আমাদের হাতে যেহেতু খুব বেশি সময় নেই, তাই প্রাথমিক দলটিও খুব বড় হবে না, ৩০ জনের। বিজয় দিবস টুর্নামেন্টে কে কেমন করে, সেটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। জিমিদের উচিত হবে খুব ভালো প্রস্তুতি নিয়ে টুর্নামেন্টটি খেলা।’

নৌবাহিনীর কোচ নুরুন নবী জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্টস কাপে পর্যাপ্ত প্রস্তুতি ছিল না বলেই তাঁরা টুর্নামেন্টটি খেলেননি। বিজয় দিবসের জন্য এরই মধ্যে মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামে টার্ফে তাঁরা অনুশীলন শুরু করেছেন। এ টার্ফে টানা দুই মাস অনুশীলন করে প্রেসিডেন্ট কাপে শিরোপা জিতেছে অনূর্ধ্ব-২১ দলের একাংশ। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির মূল দলেও এ খেলোয়াড়দের অনেকেই সুযোগ পেতে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন হারুন, ‘প্রেসিডেন্ট কাপে ওদের বেশ ভালোই মনে হয়েছে। ফিটনেস ঠিক ছিল, ভালো রানিং করেছে। এই দলের কয়েকজন তো আছেই মূল দলে খেলে। তা ছাড়া চ্যাম্পিয়নস ট্রফির প্রাথমিক দলে এখান থেকেই ১৫ জনের মতো খেলোয়াড়কে আমরা সুযোগ দিতে পারব বলে আশা করি।’ সেনাবাহিনী ও বিমানবাহিনী দলে খেলা জাতীয় দলের অন্যদের ফিটনেস নিয়েও সন্তুষ্ট হারুন। পুলিশের হয়ে খেলা হাসান জুবায়ের ও পুস্কর খীসার প্রতি আরো উন্নতির তাগিদ তাঁর। তবে জিমিসহ দলের মূল খেলোয়াড়দেরই এখনো দেখার অপেক্ষা তাঁর।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা