kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৭ মাঘ ১৪২৭। ২১ জানুয়ারি ২০২১। ৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

অবশেষে জিতল ঢাকা

৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অবশেষে জিতল ঢাকা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আত্মবিশ্বাসে চির ধরা দুই দলের ম্যাচ যেমন হয় আর কি। তামিম ইকবাল-নির্ভর ব্যাটিং লাইন নিয়ে চতুর্থ ম্যাচে এসেও সঠিক রোডম্যাপ আঁকতে পারেনি ফরচুন বরিশাল। অন্যদিকে টানা তিন হারে জেরবার বেক্সিমকো ঢাকা জয়ের জন্য ১০৯ রান তুলতেই যেমন কাঁপাকাঁপি করল, তা দৃষ্টিসুখকর নয়। ভাগ্যিস পেন্ডামিকের কারণে গ্যালারিতে দর্শক নেই। টিভির দর্শকদের অবশ্য এ যন্ত্রণা সইবার বাধ্যবাধকতা নেই। রিমোটের বাটন টিপে অন্য চ্যানেলে চলে গেলেই হলো, এমন ম্যাড়মেড়ে টি-টোয়েন্টি না দেখলেই কী!

অবশ্য টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা বরিশালের করা ৮ উইকেটে ১০৮ রান টপকাতে গিয়েও ম্যাচ প্রায় জমিয়েই দিয়েছিল ঢাকা। বরিশালের তামিমের মতো ঢাকার ব্যাটিংয়ের অন্ধের যষ্টি যেন মুশফিকুর রহিম। তাই অন্য প্রান্ত থেকে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ছে দেখে তিনি (৩৪ বলে ২৩*) ‘অ্যাংকর রোল’ ব্যাটিং করেছেন। এই ফাঁকে শেষ ২ ওভারে ঢাকার ১৬ রানের লক্ষ্যকেও মসৃণ মনে হচ্ছিল না। কিন্তু তাসকিন আহমেদের করা ১৯তম ওভারে দুই ছক্কায় মামলা ডিসমিস করে দেন ইয়াসির আলী।

অবশ্য ৩০ বলে ৪৪ রানে অপরাজিত থাকা ইয়াসির নন, ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন ঢাকার অফস্পিনার রবিউল ইসলাম রবি। ঘরোয়া ক্রিকেটে তিনি একেবারে আগন্তুক নন। তাই বলে তৃতীয় চেঞ্জে এসে বরিশালকে উদভ্রান্ত করে দেবেন, খুব বেশি মানুষ ভাবেনি সম্ভবত। অন্তত বরিশালের ব্যাটসম্যানরা তো ভাবেনইনি। তাই রবিউলকে পেয়ে চালিয়ে খেলতে গিয়ে লং অফেও উইকেট দিয়েছেন তামিমের মতো খ্যাতিমান। সব মিলিয়ে ২০ রানে রবিউলের ৪ উইকেটই গড়ে দিয়েছেন ম্যাচের ভাগ্য।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা