kalerkantho

রবিবার । ১০ মাঘ ১৪২৭। ২৪ জানুয়ারি ২০২১। ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

পেলের ১০ নম্বর যখন ম্যারাডোনার

৩০ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তাঁর জন্ম আর্জেন্টিনায়। মৃত্যুও। তবে ভালোবাসার সীমানা শুধু আর্জেন্টিনার সীমান্তে আটকে নেই। বিশ্বজুড়েই কোটি ভক্ত ডিয়েগো ম্যারাডোনার। এমনকি চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলে পর্যন্ত অসংখ্য ভক্ত তাঁর। ব্রাজিলের হয়ে ৪১ ম্যাচ খেলা রেনাতো গাউচো ১৯৮৬ বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তিকে শ্রদ্ধা জানিয়েছিলেন ডাগ আউটে ম্যারাডোনা লেখা আর্জেন্টিনার ১০ নম্বর জার্সি পরে। পেলের সঙ্গে সর্বকালের সেরা হওয়ার লড়াই ভুলে গিয়েছিলেন তিনি। এবার খোদ পেলের ক্লাব সান্তোসও শ্রদ্ধা জানাল ম্যারাডোনাকে।

পেলের ১০ নম্বর জার্সির বিশেষ মর্যাদা এই ক্লাবের কাছে। সেই জার্সি নম্বরের নিচেই ম্যারাডোনার নাম লিখে ম্যাচ খেললেন ইয়েফেরসেন সতেলদো। স্পোর্ত রেসিফের বিপক্ষে ম্যাচটি সান্তোস জিতেছে ৪-২ গোলে। খেলা শুরুর আগে সান্তোস এক মিনিট নীরবতা পালন করে। গ্যালারিতেও লেখা হয়েছিল ‘আদিয়োস’ বা বিদায়। একটা সময় সান্তোসে খেলা সময়ের অন্যতম সেরা তারকা নেইমারও শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ম্যারাডোনাকে। পিএসজির হয়ে লিগ ওয়ানে বোর্দুর বিপক্ষে নামার আগে ম্যারাডোনার ছবি আঁকা বিশেষ টি-শার্ট পরে এসেছিলেন এই ব্রাজিলিয়ান। লেখা ছিল ‘আদিয়োস এল ১০’।

ফকল্যান্ড যুদ্ধ, ১৯৮৬-র বিশ্বকাপ, হ্যান্ড অব গড গোল নিয়ে ম্যারাডোনাকে বরাবরই খুঁচিয়ে গেছে ইংলিশ ফুটবল সমাজ। সেই ইংল্যান্ডের প্রিমিয়ার লিগও শ্রদ্ধা জানিয়েছে ম্যারাডোনাকে। প্রতিটি ম্যাচ শুরুর আগে পালন করা হয়েছে এক মিনিট নীরবতা। ম্যারাডোনা নাপোলিতে খেলার সময় মিলান এবং রোমার রক্ষণে ছিলেন কার্লো আনচেলোত্তি। খবরটি শুনে এখন এভারটনের কোচের দায়িত্বে থাকা আনচেলোত্তিও ভেঙে পড়েছিলেন কান্নায়।

একইভাবে শ্রদ্ধা জানিয়েছে লা লিগার ক্লাবগুলোও। একটা সময় সেভিয়ায় খেলেছিলেন ম্যারাডোনা। পরশু হুয়েস্কার বিপক্ষে ম্যাচের আগে সেই সেভিয়ার সব খেলোয়াড় পরে এসেছিলেন বিখ্যাত ১০ নম্বর জার্সিটি। এ জন্যই বলা হয়, কিংবদন্তিদের মৃত্যু নেই। ওলে

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা