kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

তরুণদের ছাপিয়ে ইব্রাহিমোভিচ

২৪ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তরুণদের ছাপিয়ে ইব্রাহিমোভিচ

ভারজিল ফন ডাইক, মো সালাহ, আলেকজান্ডার আরনল্ড, থিয়াগো আলকান্তারা, ফাবিনহো, অ্যালেক্স অক্সলেড চেম্বারলিনের মতো তারকারা মাঠের বাইরে চোট, নয়তো করোনার কারণে। তবু থামানো যাচ্ছে না লিভারপুলকে। বরং লিস্টার সিটিকে ৩-০ গোলে হারিয়ে নতুন ইতিহাস গড়েছে তারা। এ নিয়ে অ্যানফিল্ডে প্রিমিয়ার লিগে টানা ৬৪ ম্যাচ অপরাজিত অলরেডরা, যা ক্লাবের সর্বোচ্চ। তারকাদের ছাড়া এমন পারফরম্যান্সে উচ্ছ্বসিত কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ, ‘ছেলেরা যেন আগুনে ছন্দে। শক্তিশালী এক বিপক্ষের বিপক্ষে অসাধারণ খেলেছে ওরা।’

এদিকে সিরি ‘এ’-তে বুড়ো হাড়ের ভেলকি দেখিয়ে চলেছেন জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ। তাঁর জোড়া গোলে নাপোলির মতো প্রতিপক্ষকে ৩-১ গোলে হারিয়ে শীর্ষে এসি মিলান। ছয় ম্যাচে ১০ গোল করে সিরি ‘এ’-এর শীর্ষ গোলদাতা এখন ৩৯ বছরের ইব্রা। তাঁরই সাবেক সতীর্থ জেনারো গাত্তুসো এখন নাপোলির কোচ। ইব্রার প্রসংশায় পঞ্চমুখ তিনিও, ‘ইব্রার কাছেই হারলাম। ১০ বছর আগের চেয়ে এখন বেশি শক্তিশালী ও।’ ম্যাচের ১১ মিনিট বাকি থাকতে অবশ্য চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন ইব্রা।

নিজেদের মাঠে লিগে ১৯৮১ সালে টানা ৬৩ ম্যাচ অপরাজিত ছিল লিভারপুল। সেবারের যাত্রাটি থেমেছিল লিস্টারের কাছে হেরে। ৩৯ বছর পরও এমন রেকর্ডের সামনে প্রতিপক্ষ সেই লিস্টার। এবার ৩-০ গোলে জিতে অ্যানফিল্ডে অপরাজিত থাকার কীর্তিটা ৬৪ ম্যাচে নিয়ে গেল তারা। ২১ মিনিটে জেমস মিলনারের কর্নার হেডে বিপদমুক্ত করতে গিয়ে উল্টো নিজেদের জালে জড়িয়ে ফেলেন লিস্টারের জনি ইভান্স। ৪১ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন দিয়েগো জোতা। নিজেদের মধ্যে টানা ৩০ বার বল আদান-প্রদান করার পর অ্যান্ডি রবার্টসনের ক্রসে মাথা ছুঁইয়ে বল জালে জড়ান পর্তুগিজ এই উইঙ্গার। ৮৫ মিনিটে রবার্তো ফিরমিনোর লক্ষ্যভেদে ৩-০ গোলে দাপুটে জয় লিভারপুলের।

নাপোলির মাঠে ২০ মিনিটে ইব্রাহিমোভিচ প্রথম গোলটি করেন কালিদু কুলিবালিকে বোকা বানিয়ে নেওয়া হেডে। ৫৪ মিনিটে তাঁর জোড়া গোলের পর ইনজুরি টাইমে তৃতীয় গোলটি ইয়েন্স পিটার হোউগের। ১৯৯৯ সালে মালমোয় ইব্রার ক্যারিয়ার শুরুর বছরে নরওয়েতে জন্মগ্রহণ করেন হোউগ। আর নিরানব্বইয়ের কাছাকাছি সময়ে জন্ম মিলানের অন্য সতীর্থ জিয়ানলুইজি দেন্নারুমা, দিয়েগো দালোত, রাফায়েল লিয়াও, ব্রাহিম দিয়াজের। এই তরুণদের ছাপিয়ে মিলানের ভরসা এখন ইব্রাই! এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা