kalerkantho

শুক্রবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০। ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

মোনাকোয় হোঁচট খেল পিএসজি

২২ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মোনাকোয় হোঁচট খেল পিএসজি

কিলিয়ান এমবাপ্পের গোলে ৩৭ মিনিটে ২-০ গোলে এগিয়ে পিএসজি। ২০১১ সালে কাতারি মালিকানায় যাওয়ার পর লিগ ওয়ানে এমন পরিস্থিতিতে একবারই শুধু হেরেছে তারা। গত পরশু রাতে ফরাসি লিগ চ্যাম্পিয়নদের সেই দুঃসহ স্মৃতিই মনে করিয়ে দিল মোনাকো। দলের সেরা দুই তারকা নেইমার ও এমবাপ্পের চোট থেকে ফেরার ম্যাচটা তাই উৎসবের বদলে শেল হয়েই বিঁধেছে পারিজিয়ানদের বুকে!

দ্বিতীয়ার্ধে কেভিন ভোলান্ডের জোড়া লক্ষ্যভেদে সমতায় ফেরার পর ৮৪ মিনিটে সেস্ক ফ্যাব্রেগাসের পেনাল্টি থেকে করা গোলে ৩-২ গোলে জয় নিশ্চিত হয় স্বাগতিকদের। লিগ ওয়ানে টানা আট জয়ের পর তাই এখানেই থামতে হয়েছে টমাস টুখেলের শিষ্যদের। টুখেল হতবাক এমন ম্যাচ হেরে, ‘সত্যি বলতে রাগের চেয়ে বিস্ময়ই বেশি। প্রথম ও দ্বিতীয়ার্ধের খেলায় এতটা পার্থক্য ভাবা যায় না!’ অথচ মোনাকো এদিন তারুণ্যনির্ভর দলই নামিয়েছিল করোনা পজিটিভ হওয়া অধিনায়ক উইসাম বেন ইয়েদের ছাড়া। একাদশের আটজনেরই বয়স ছিল ২৩-এর নিচে।

২৫ মিনিটে আনহেল দি মারিয়ার বাড়ানো বলে এমবাপ্পে সফরকারীদের এগিয়ে দিয়েছিলেন। ৩৭ মিনিটে পেনাল্টি পায় পিএসজি। স্পটকিক থেকে এমবাপ্পেই পিএসজি ক্যারিয়ারে নিজের ৯৯তম গোলটি করেছেন। ম্যাচের বাকি অংশে তাঁর হ্যাটট্রিকের সুযোগের সঙ্গে ১০০তম গোল ছোঁয়ারও হাতছানি ছিল। সাবেক মোনাকো তারকা তৃতীয়বারের মতো বল জালে পাঠালেও অফসাইডে বাতিল হয় তা। দ্বিতীয়ার্ধে মোনাকো বদলে যায় ফ্যাব্রেগাস যোগ হয়ে অসাধারণ সব পাস খেলা শুরু করলে। ৫২ মিনিটে আসে তাদের প্রথম গোলটি। গেলসন মার্টিনসের বাড়ানো বলে লক্ষ্যভেদ করেন ভোলান্ড। ৬৪ মিনিটে তাঁর দ্বিতীয় গোলে অ্যাসিস্ট ফ্যাব্রেগাসের। আর ম্যাচ শেষ হওয়ার মিনিট ছয়েক আগে ডিফেন্ডার আবদু দিয়ালু বক্সের ভেতর ফাউল করলে পেনাল্টি পেয়ে যায়, ফ্যাব্রেগাস দলকে জেতানোর সেই সুযোগ নষ্ট করেননি। এমন অসাধারণ জয়ের পর মোনাকো কোচ নিকো কোভাচ উচ্ছ্বাস লুকাননি, তবে ‘এটাই শেষ নয়’ বলে দলকে নতুন চ্যালেঞ্জের জন্য অনুপ্রাণিতও করছেন। এখনো শীর্ষে থাকা পিএসজির চেয়ে ৪ পয়েন্ট পিছিয়ে তারা। তবে আরবি লিবজিগের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে এমন হার ফরাসি চ্যাম্পিয়নদের দুর্ভাবনায় না ফেলে পারে না। এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা