kalerkantho

শুক্রবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০। ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

দেখা হলো দুজনার

২২ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেখা হলো দুজনার

ছবি : মীর ফরিদ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : গত বছরের অক্টোবরে ক্রিকেটারদের আন্দোলনের পর আর দেখা হয়নি দুজনের। সাকিব আল হাসান নিষিদ্ধ হন এক বছরের জন্য, করোনার কারণে খেলাও বন্ধ হয়ে যায়। নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষে সাকিব যখন মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে পা রাখেন, তখন তামিম পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল) খেলতে করাচি যাওয়ার জন্য ব্যাগ গোছানোয় ব্যস্ত। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ উপলক্ষে গতকাল প্রস্তুতি সূচির ভিড়েই দেখা হয়ে গেল দুজনের। খুব বেশি না হলেও কথা হয়েছে তাঁদের।

একটা সময় ছিল যখন বলা হতো তাঁরা ঘনিষ্ঠতম বন্ধু। প্রায় একই সময়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক। এবং তারকার মর্যাদা পাওয়ার শুরুও কাছাকাছি সময়ে। ঘনিষ্ঠরা দেখেছেন ২০১১ বিশ্বকাপ পর্যন্তও লেটেস্ট মডেলের গাড়ি, ভালো রেস্টুরেন্ট কিংবা বাজারে আসা নতুন মোবাইল ফোন নিয়ে কত আড্ডা দিতেন সাকিব আর তামিম। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে যত সময় গেছে, ততই পেশাদারি হয়েছে দুজনের সম্পর্ক। মাঠে এবং ক্রিকেট ছাড়া অন্য কোনো বিষয় নিয়ে এই দুই ক্রিকেট আইকনের কথা হয় বলে জনশ্রুতি নেই। বরং এন্ডোর্সমেন্ট মার্কেটে মারকুটে সিঙ্গেল উইকেট ম্যাচ খেলে চলেছেন নীরবে, আছে মাঠের নৈপুণ্যে একে অন্যকে ছাড়িয়ে যাওয়ার স্বাস্থ্যকর লড়াইও। তবে ক্রিকেট মাঠে দুজনই পেশাদার, ২২ গজে জুটি গড়ার সময় চকিতে রান নিতে ভুল করেন না। কিংবা ক্রিকেটারদের আন্দোলনের ছক, সেসব নিয়ে বোর্ডের সঙ্গে দেন-দরবারেও জুটি বেঁধেছিলেন তামিম ও সাকিব।

গতকাল মিরপুরের একাডেমি মাঠের বাইরেও দীর্ঘ প্রায় এক বছর পর কুশল বিনিময় ক্রিকেটীয় ভাব বিনিময় দিয়েই হয়েছে বলে জানা গেছে। একাডেমি মাঠের বাইরে আল-আমিন হোসেনের সঙ্গে দাঁড়িয়ে কথা বলছিলেন তামিম। ওই সময় একাডেমিতে যাওয়ার পথে ওয়ানডে অধিনায়কের সঙ্গে দেখা সাকিবের। ক্রিকেটে ফেরা অলরাউন্ডারকে আসন্ন টুর্নামেন্টের জন্য শুভ কামনা জানিয়েছেন তামিম। আর প্রত্যুত্তরে সাকিব জানতে চেয়েছেন পিএসএল কেমন হয়েছে এবার। ব্যস, এটুকুই। এরপর সাকিব চলে যান একাডেমির মাঠে, নতুন লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিতে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা