kalerkantho

বুধবার । ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৫ নভেম্বর ২০২০। ৯ রবিউস সানি ১৪৪২

পাঁচ উইকেট

সুমন মাতালেন ফাইনাল

২৬ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুমন মাতালেন ফাইনাল

ছবি : মীর ফরিদ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বাবার সঙ্গে চ্যালেঞ্জ করেই বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চশিক্ষা ছেড়ে বিকেএসপিতে নাম লিখিয়েছিলেন সুমন সাহা। শর্ত ছিল তিন বছরের মধ্যে ক্রিকেটে ঔজ্জ্বল্য ছড়াতে না পারলে ফিরতে হবে পড়াশোনায়। সেই সুমন খানই গতকাল গড়ে দিয়েছেন বিসিবি প্রেসিডেন্টস একাদশের ফাইনালের ভাগ্য।

মানিকগঞ্জের এক তরুণ ৩৮ রানে ৫ উইকেট নেওয়ার পর মাহমুদ উল্লাহ একাদশের ব্যাটিংয়ের কাজটা ছিল নিয়ম রক্ষার। ৩০তম ওভারে সেটি করেও ফেলে তারা।

লড়াইটা হওয়ার কথা ছিল রুবেল হোসেন বনাম মুশফিকুর রহিমের। রুবেল তাঁর কাজটা ঠিকই করেছেন, সাইফ হাসান আর ইরফান শুক্কুরের মূল্যবান উইকেট তুলে নিয়ে তিনিই টুর্নামেন্টের সবচেয়ে বেশি শিকারের মালিক এবং সেরা বোলারও। কিন্তু টুর্নামেন্টজুড়েই নড়বড়ে টপ অর্ডারের ক্ষতি আর এদিন পুষিয়ে দিতে পারেননি মুশফিক। দারুণ দুটি ড্রাইভে বড় ইনিংসের সম্ভাবনা জাগালেও সুমন খানের ভেতরে ঢোকা বলটি আর সামলাতে পারেননি মুশফিক। নাজমুল একাদশও আর সামলাতে পারেনি এ ধাক্কা। বলা ভালো, সুমন খানের অ্যাকুরেসির কাছে জলাঞ্জলি গেছে দলটির সব প্রতিরোধ। তবু ভালো যে ইরফান শুক্কুর অলরাউন্ডারের ভূমিকায় এদিনও উজ্জ্বল। ৭৭ বলে তাঁর ৭৫ রানের ইনিংসেই ১৭৩ পর্যন্ত যেতে সক্ষম হয়েছে নাজমুল একাদশ। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রানের মালিকও ইরফান। তাঁর পরেই মুশফিক।

যথারীতি শুরুতে হোঁচট খেয়েছে মাহমুদ উল্লাহ একাদশও। দলীয় ১৮ রানে ওপেনার হিসেবে এদিন নামা মমিনুল হক ফিরে যাওয়ার পর ম্যাচের ব্যাটন লিটন থেকে বদলি হয়ে ইমরুল কায়েস আর মাহমুদের হাতে ওঠে। তাঁরা আর পথ হারাননি, নিশ্চিত করেছেন ৭ উইকেটের জয়।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

নাজমুল একাদশ : ৪৭.১ ওভারে ১৭৩/১০ : ইরফান ৭৫, নাজমুল ৩২, তৌহিদ ২৬, মুশফিক ১২; সুমন ৫/৩৮, রুবেল ২/২৭)।

মাহমুদ উল্লাহ একাদশ : ২৯.৪ ওভারে ১৭৭/৩ ( লিটন ৬৮, ইমরুল ৫৩*, মাহমুদ ২৩*; নাসুম ২/৪৮)।

ফল : মাহমুদ উল্লাহ একাদশ ৭ উইকেটে জয়ী।

ফাইনালের সেরা : সুমন খান।

টুর্নামেন্ট সেরা : মুশফিকুর রহিম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা