kalerkantho

বুধবার । ৫ কার্তিক ১৪২৭। ২১ অক্টোবর ২০২০। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ক্রিকেটাররা আবারও বায়ো-বাবলে

১ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রিকেটাররা আবারও বায়ো-বাবলে

ক্রীড়া প্রতিবেদক : অনিশ্চয়তা থাকলেও বায়ো-বাবল বা জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকার প্রথম পর্যায়ে ক্রিকেটাররা জানতেন শ্রীলঙ্কা সফর হলেও হতে পারে। তবে আজ থেকে যখন আবার শুরু হচ্ছে হোটেল-স্টেডিয়াম-হোটেলে সীমিত জীবনের দ্বিতীয় পর্যায়, তখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার ছিটেফোঁটা সম্ভাবনাও নেই তাঁদের সামনে। তবু চার দিন বিরতির পর আবার ১৫ দিনের জন্য সামাজিক সংস্পর্শবিহীন জীবনে ঢুকে পড়তে হচ্ছে স্কিল ক্যাম্পে থাকা ক্রিকেটারদের। এর আগে গতকাল জাতীয় দল তো বটেই, অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সঙ্গে যুক্ত সবারও করোনা পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। একই দিনে বিকেএসপিতে শুরু হচ্ছে যুব দলেরও দ্বিতীয় পর্যায়ের আবাসিক অনুশীলন শিবির। জাতীয় ক্রিকেটারদের আবাসনের ব্যবস্থাও আগের ঠিকানায়ই, প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে।

ছুটিতে বায়ো-বাবল থেকে মুক্ত হওয়া ক্রিকেটাররা হোটেল ছেড়েছিলেন গত ২৬ সেপ্টেম্বর। ২৮ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান শ্রীলঙ্কা সফরে না যাওয়ার চূড়ান্ত ঘোষণা দেওয়ার পাশাপাশি এও জানিয়ে দেন যে স্কিল ক্যাম্প চলবে। সেটি আসন্ন ঘরোয়া ক্রিকেটের জন্য খেলোয়াড়দের প্রস্তুত করার স্বার্থেই। যদিও ঘরোয়া ক্রিকেট খেলে জীবিকা নির্বাহ করা ক্রিকেটারদেরও মাঠে ফেরার প্রস্তুতি কম জরুরি নয়। যদিও শিগগিরই তাঁদের জন্য কোনো ব্যবস্থার ইঙ্গিত নেই। সে ক্ষেত্রে ঘরোয়া ক্রিকেট শুরু হলেও আগে জাতীয় দল, হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটারদের সম্পৃক্ত করেই কোনো আসর হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। যেহেতু এই দলগুলোর ক্রিকেটাররা নিবিড় অনুশীলনেই আছেন এখনো।

জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা এবার নিজেদের মধ্যে খেলবেন অনুশীলন ম্যাচও। তিনটি অনুশীলন ম্যাচের দুটি দুই দিনের আর একটি তিন দিনের। প্রথম দুই দিনের ম্যাচটি শুরু হচ্ছে কাল থেকেই। এক দিন বিশ্রামের পর দ্বিতীয় ম্যাচটি হবে ৫ ও ৬ অক্টোবর। ১৩-১৫ অক্টোবর পর্যন্ত হবে তিন দিনের ম্যাচটি। আজ দুপুরে শুরু অনুশীলন। তার আগে করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হওয়া ক্রিকেটাররা উঠে যাবেন হোটেলে। অস্বস্তি লুকিয়েই বায়ো-বাবলের প্রথম পর্যায় পার করা ক্রিকেটাররা এবারও নিশ্চয়ই খুব স্বস্তিতে থাকবেন না!

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা