kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আর অবাক হন না মেসি

যেভাবে তোমাকে ওরা ক্লাব থেকে বের করে দিল, এটা তোমার প্রাপ্য ছিল না। কিন্তু সত্যিটা হলো, এখন ক্লাবে যা হচ্ছে তাতে আর কোনো কিছুতে অবাক হই না আমি।

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আর অবাক হন না মেসি

বার্সেলোনার সঙ্গে সম্পর্কটা তলানিতে লিওনেল মেসির। ক্লাব ছাড়তে চাইলেও পারেননি সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউয়ের কারণে। গোলডটকমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বার্তোমেউকে নিয়েছিলেন একহাতও। এবার প্রিয় বন্ধু লুই সুয়ারেসের অসম্মানজনক বিদায়ে ধরে রাখতে পারলেন না নিজেকে।

সুয়ারেসের সঙ্গে অন্যায় আচরণ করায় ইনস্টাগ্রামে বার্সেলোনাকে ধুয়ে দিলেন মেসি, ‘বেশ কদিন ধরেই অনুমান করছিলাম এমন কিছু হতে চলেছে। তবু যখন লকার রুমে ঢুকলাম, ব্যাপারটার গুরুত্ব টের পেলাম পুরোপুরি। কী কঠিনই না হবে তোমার সঙ্গে প্রতিটি দিন কাটাতে না পেরে। মাঠে যেমন, মাঠের বাইরেও। কতগুলো বছর, কত শত মাতে (লাতিন পানীয়), কত লাঞ্চ, ডিনারের স্মৃতি। তোমাকে অন্য কোনো জার্সিতে দেখাটা অদ্ভুত হবে, তোমার মুখোমুখি হওয়ার ব্যাপারটা তো আরো বেশি। যেভাবে তোমাকে ওরা ক্লাব থেকে বের করে দিল, এটা তোমার প্রাপ্য ছিল না। কিন্তু সত্যিটা হলো, এখন ক্লাবে যা হচ্ছে তাতে আর কোনো কিছুতে অবাক হই না আমি।’

বার্সার ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা লুই সুয়ারেস। অথচ রোনাল্ড কোম্যান দায়িত্ব নিয়েই জানিয়ে দেন, তাঁর পরিকল্পনায় নেই এই উরুগুইয়ান। সুয়ারেসের জুভেন্টাসে যাওয়া হয়নি ইতালিয়ান পাসপোর্ট জটিলতায়। অ্যাতলেতিকোতে যাওয়াটাও প্রথমে আটকে দিতে চেয়েছিলেন বার্তোমেউ। অযথা কাদা ছোড়াছুড়িতে সব কিছু নোংরা করে তোলেন তিনি। এটাই মানতে পারছেন না মেসি। যেভাবে সুয়ারেসের বিদায় হয়েছে, সন্তুষ্ট নন তাতেও। এর পরও প্রিয় বন্ধুর বিদায়ি বার্তায় ক্ষোভটা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে জানিয়েছেন শুভ কামনা, ‘ক্লাবের ইতিহাসের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হিসেবেই বিদায়টা প্রাপ্য ছিল তোমার, ব্যক্তিগত ও দলীয় শিরোপা জয়ের আনন্দের মধ্যে। শুভ কামনা রইল তোমার নতুন অভিযানে। খুব ভালোবাসি তোমাকে, অনেক অনেক ভালোবাসি। খুব তাড়াতাড়িই দেখা হবে বন্ধু।’ ইনস্টাগ্রাম

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা