kalerkantho

বুধবার । ৫ কার্তিক ১৪২৭। ২১ অক্টোবর ২০২০। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

অপেক্ষায় অপেক্ষায় যাচ্ছে বেলা

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অপেক্ষায় অপেক্ষায় যাচ্ছে বেলা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : গত বুধবার থেকে আশায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) যে, চিঠি আসবে...আসছে। কিন্তু শিথিল কোয়ারেন্টিনের অনুমোদন সংবলিত সেই ই-মেইল আর আসে না। গতকালও আসেনি। তবে এ অনিশ্চয়তার মাঝেও বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের (এসএলসি) পক্ষ থেকে ইতিবাচক বার্তাই আশা করছেন। সে বার্তা দু-এক দিনের মধ্যেই পৌঁছে যাবে বলে গতকাল জানিয়েছেন তিনি।

শ্রীলঙ্কায় তিন টেস্টের সিরিজের প্রাক-প্রস্তুতি পূর্বপরিকল্পনামতোই বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে বিসিবি। দুই দফায় কভিড-১৯ পরীক্ষায় সব ক্রিকেটার উতরে গেছেন। আজ এক সপ্তাহের কোয়ারেন্টিনের জন্য হোটেলেও উঠবেন সবাই। এক দিন বিরতি দিয়ে ২২ তারিখ থেকে শুরু হবে মমিনুল হকদের স্কিল ট্রেনিং। ওদিকে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাও ২৩ জনের প্রাথমিক দল নিয়ে সিরিজের জন্য প্রস্তুতি শুরু করেছে তিন দিন আগে। দুই দেশের ক্রিকেটারদের এমন সাজ সাজ রবের মাঝেও কিন্তু সফর নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যে স্বাস্থ্যবিধি দিয়েছে, সেটি অনুসরণ করা সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দিয়েছে বিসিবি। এরপর অতিথি দলের প্রস্তাবনা নিয়ে নিজ দেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, কভিড-১৯ টাস্কফোর্স এবং স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ—সবার সঙ্গেই আলোচনা করেছে এসএলসি। এসব আলোচনা সম্পর্কে অবগতও বিসিবি। জানেন বলেই আনুষ্ঠানিকভাবে সংশোধিত প্রস্তাবের জন্য অপেক্ষায় নিজাম উদ্দিন, ‘আপনারা জানেন এরই মধ্যে বেশ কিছু বিষয় নিয়ে শ্রীলঙ্কান বোর্ডের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে একটা বিবৃতি গিয়েছিল, যেহেতু সফরের সময় ঘনিয়ে আসছিল। এরপর আর আলোচনা হয়নি। যতটুকু জেনেছি বা এসএলসি যা জানিয়েছে তা হলো, আমাদের বিষয়গুলো তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে তুলে ধরেছে এবং ইতিবাচক সভা হয়েছে। আশা করছি আগামী দু-এক দিনের মধ্যে তাদের কাছ থেকে দিকনির্দেশনা বা স্বাস্থ্যবিধি পাব।’

সরকারের সঙ্গে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট প্রশাসনের ইতিবাচক আলোচনার বিস্তারিত অবশ্য এগিয়ে গেছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী, ‘এটা নিয়ে এই মুহূর্তে কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না। তারা বলেছে যে আমাদের বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছে এবং তারা বলেছে একটা ভালো আলোচনা হয়েছে। সেই আলোচনার ফল আনুষ্ঠানিকভাবে না জানলে আমরা মন্তব্য করতে পারছি না।’

বিষয়টি যেহেতু স্বাস্থ্যবিধি এবং এর নিয়ন্ত্রণ এখন বিশেষ টাস্কফোর্সের হাতে, তাই নির্দেশনার বাইরে যাওয়ার উপায়ও নেই এসএলসির। শ্রীলঙ্কার করোনা পরিস্থিতি এ উপমহাদেশে সবচেয়ে ভালো অবস্থায় রয়েছে। তাই ক্রিকেটের নামে করোনা প্রতিরোধী কার্যক্রমে বেশি চাপাচাপি করতে রাজি নয় এসএলসি। বিশেষ করে অতিথি দল বাংলাদেশ, কভিড-১৯ মহামারির মানচিত্রে যে দেশটির ওপর সতর্কতার লাল বিন্দু দেওয়া আছে।

সফর নিয়ে এমন অনিশ্চয়তায় ক্রিকেটাররা কিছুটা বিরক্তও। এমনিতেই দীর্ঘ সফরের জন্য দেশে-বিদেশে মিলিয়ে অন্তত দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টিন করতে হবে। সে লক্ষ্যে করোনা পরীক্ষা করিয়ে হোটেলে উঠছেন সবাই আজ। এরপর আরো দুই দফা করোনা পরীক্ষার নমুনা দিতে হবে তাঁদের। এরপর ২৭ সেপ্টেম্বর কলম্বোর ফ্লাইট। অথচ এখনো জানেনই না তাঁরা তিন টেস্টের সিরিজ খেলতে আদৌ তাঁদের শ্রীলঙ্কায় যাওয়া হবে কি না! ‘একটু অবাক লাগছে’, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ক্রিকেটারটির কণ্ঠের হতাশা কিন্তু আড়াল হয়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা