kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ কার্তিক ১৪২৭। ৩০ অক্টোবর ২০২০। ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ছায়া দিয়ে গেছেন তিনি

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ছায়া দিয়ে গেছেন তিনি

এ এস এম ফারুক (জন্ম : ১৯৪৫, মৃত্যু : ২০২০)

ক্রীড়া প্রতিবেদক : একজন নিপাট ভদ্রলোক। একজন রুচিশীল, বরাবর সদালাপী। নিজে বয়সের ভারে ন্যুব্জ। তবু করোনাকালে নিয়মিত টেলিফোনে খবর নিয়েছেন সমসাময়িকদের। এ মানবিকতাই তাঁকে বিশেষ মর্যাদা দিয়েছে পরিচিত মহলে। সদা হাস্যোজ্জ্বল সেই এ এস এম ফারুক বুধবার আচমকা চলে গেলেন অন্য জগতে। গতকাল জোহর নামাজের পর জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন হয়েছে ৭৫ বছর বয়সী সাবেক এই ক্রিকেটারের।

ক্রিকেটার বলতেই রান-উইকেট গড় খোঁজা হয়। এ এস এম ফারুকদের যুগে সেসবের নথি রাখার অভ্যাস গড়ে ওঠেনি বাংলাদেশে। তবে খেলোয়াড়ি জীবনে দেশের শীর্ষস্থানীয় ক্রিকেটারদের কাতারেই ছিলেন ফারুক। পরিচয়ে অলরাউন্ডার, তবে মোহামেডানের ইনিংস ওপেন করতেন। তখন মোহামেডানের রমরমা। সেই ক্লাবের নেতৃত্ব দিয়েছেন। বাংলাদেশে সফরকারী এমসিসি দলের বিপক্ষে প্রথম বাংলাদেশ দলের সদস্য ছিলেন। একটি আঞ্চলিক ম্যাচে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্বও দিয়েছেন। ষাটের দশকে আম্পায়ার হিসেবে সুনাম কুড়িয়েছিলেন। আশির দশকে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের একটি সফরে ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০৩ বিশ্বকাপ এবং ২০১৬ যুব বিশ্বকাপে একই দায়িত্ব পালনকারী ফারুক বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটিতেও কাজ করেছেন।

এগুলো স্রেফ কিছু তথ্য। ফারুকের সত্যিকারের মহিমার কথা কোথাও লেখা নেই। বিয়ের আগে পর্যন্ত মোহামেডান ক্লাবেই থাকতেন তিনি। তাতে ক্লাবের ফুটবলারদের সঙ্গেও দারুণ সখ্য ছিল ফারুকের। এ আন্তরিকতার কারণে মোহামেডানের স্বর্ণসময়ে ফুটবল দলেরও ম্যানেজার হয়েছিলেন তিনি। তবে ক্রিকেট থেকে সরে যাননি। ১৯৮২ সালে খেলা ছাড়ার পর সাংগঠনিক কাজে খুব বেশিদিন জড়িত না থাকলেও ক্রিকেট ফারুকের ভাবনা থেকে সরে যায়নি। কতবার যে ক্রিকেট নিয়ে সেমিনার আয়োজনের পরিকল্পনা করেছিলেন ফারুক।

তাঁর অধীনে মোহামেডানে খেলেছেন বিসিবির পরিচালক মাহবুব আনাম। গতকাল ফারুকের জানাজার পর স্মৃতিচারণাও করেছেন তিনি, ‘ফারুক ভাই ক্লাবকে কতটা ভালোবাসতেন, সেটা কাছ থেকে না দেখলে বোঝা যায় না। মোহামেডান ক্লাব উনার প্রাণ ছিল, ক্লাবেই থাকতেন একসময়। ২০০৪ সালে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার জিতেছেন। উনার ক্রীড়াপ্রেম শুধু ক্রিকেটেই সীমাবদ্ধ ছিল না। উনার ছায়া ক্লাবের সব ধরনের খেলাতেই ছিল।’ সেই ছায়াটাই সরে গেল পরশু।

মন্তব্য