kalerkantho

রবিবার । ১২ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৯ সফর ১৪৪২

লিওঁতে থামতে চায় না সিটি

১৫ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লিওঁতে থামতে চায় না সিটি

রিয়াল মাদ্রিদকে দুই লেগে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে এসেছে ম্যানচেস্টার সিটি। লিওঁ নামে ভারী না হলেও কাজে সেটি দেখিয়েছে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর জুভেন্টাসকে বিদায় করে দিয়ে। পরশু লিপজিগের হাতে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের বিদায়, তার আগে পিএসজিকে প্রায় খাদের কিনারে নিয়ে আতালান্তা দেখিয়েছে, এই করোনা-পরবর্তী ইউরোপিয়ান আসরে আগেভাগে বলা যাবে না কিছুই।

আর লিওঁ তো সবচেয়ে বেশি জানা পেপ গার্দিওলারই। গতবারই গ্রুপ পর্বের দুই লেগ মিলিয়ে হারাতে পারেনি তাঁর দল ফরাসি ক্লাবটিকে। ঘরের মাঠেই তো হারতে হয়েছিল। যদিও সেই লিওঁ অনেক বদলে গেছে। সেই কোচই নেই। নাবিল ফেকির, ফেরলান্ড মেন্ডির মতো তারকাদের ছেড়ে দিয়েছে বড় ক্লাবের কাছে। ওদিকে চ্যাম্পিয়নস লিগের রাজতিলক নিতে কী না করছে আরব ধনে ধনী ম্যানচেস্টারের ক্লাবটি। আসরের ইতিহাসে এ পর্যন্ত শেষ চারই তাদের দৌড়। গার্দিওলার অধীনে তাই শুধু সেমিফাইনাল নয়, টুর্নামেন্ট জয়ের মিশনেই আছে তারা। গার্দিওলাও রিয়ালকে হারিয়ে লিসবনে পৌঁছেই বলেছেন, ‘রিয়ালকে হারানো নিয়েই যদি আমরা সন্তুষ্ট থাকি, তাহলে আমরা সেই ছোট ক্লাবই হয়ে থাকব। আমরা এই টুর্নামেন্টটা জেতার জন্যই এসেছি।’ যদিও একেবারে ভিন্ন আমেজে হচ্ছে এবারের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বাকি আসর। এক শহরে এক লেগে খেলা হচ্ছে। সেই এক ম্যাচে হয়ে যেতে পারে যেকোনো কিছু। লিওঁ তাই স্বপ্ন দেখা ছাড়ছে না। লেফট ব্যাক ফের্নান্দো মার্কালও তাই জুভেন্টাস ম্যাচ টেনেই স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন নিজেদের সামর্থ্যের কথা। এএফপি

 

২. দুই দল মুখোমুখি হয়েছে দুই ম্যাচে। অলিম্পিক লিঁওর জয় একটি, অপর ম্যাচটির নিষ্পত্তি হয়েছে ড্রতে।

১০. লিঁও কোয়ার্টার ফাইনাল খেলছে ১০ বছর পর। ম্যানসিটি গত পাঁচ বছরে এবার নিয়ে  খেলছে চারবার।

২০. এবারের আসরে আট ম্যাচে ম্যানচেস্টার সিটির গোল ২০টি। অলিম্পিক লিঁওর গোল মাত্র ১০টি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা