kalerkantho

শনিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৮ সফর ১৪৪২

জাতীয় দলের ৭৫, বসুন্ধরার ১০০ শতাংশ

করোনা পরীক্ষা যেন ধাঁধা

৮ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনা পরীক্ষা যেন ধাঁধা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : কেস-১ : গত ৩ আগস্ট বিশ্বনাথ ঘোষ ঢাকায় এভারকেয়ার হাসপাতালে করোনা পরীক্ষা করান। সন্ধ্যায় ‘খুদে বার্তায়’ হাসপাতাল থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, তিনি ‘করোনা পজিটিভ’। কিন্তু তাঁর শরীরে কোনো লক্ষণ নেই। তাই পরদিনই তিনি আবার আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে গিয়ে পরীক্ষা করান। ৬ তারিখে দেওয়া সেই পরীক্ষার ফল পুরো উল্টো—‘করোনা নেগেটিভ’! অর্থাৎ ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানেই দুই রকম রিপোর্ট, করোনা পজিটিভ থেকে নেগেটিভ! 

কেস-২ : গত ৩ আগস্ট ম্যাথিউস বাবলু ও নাজমুল ইসলাম এভারকেয়ার হাসপাতালে পরীক্ষা করিয়ে পেয়েছেন নেগেটিভ রিপোর্ট। ৫ তারিখে বাফুফে নির্ধারিত বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে পরীক্ষায় দুজনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। ৪৮ ঘণ্টার নেগেটিভ হয়েছেন পজিটিভ।

দুটি ঘটনার মধ্যে প্রথমটি বিস্ময়কর। ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে বিশ্বনাথ নেগেটিভ রিপোর্ট পেয়ে যোগাযোগ করেন বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালের সহযোগী অধ্যাপক ও বাফুফে মেডিক্যাল কমিটির সদস্য ডা. আলী ইমরানের সঙ্গে। ‘২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে পজিটিভ থেকে নেগেটিভ হয়েছে। এটা ডাক্তার সাহেব গ্রহণযোগ্য হিসেবে মানতে পারেননি। তাই তাঁর পরামর্শমতো আমি আরো ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনের সব নিয়ম-কানুন মেনে থাকতে চাই’—বলেছেন জাতীয় দলের এই ডিফেন্ডার। গত রাতে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ২৪ ফুটবলারের ১৮ জনের করোনা হয়েছে, এটাও যে অনেকের কাছে বিস্ময়কর ঠেকছে। কারণ দুজন বাদে বাকিরা সবাই যে নেগেটিভ রিপোর্ট নিয়ে বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনা পরীক্ষা করাতে গিয়েছিলেন। ওখানকার পরীক্ষায় ১৭ জনের (বিশ্বনাথ বাদে) শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়েছে, যাঁদের শরীরে কোনো উপসর্গ নেই।

ডাক্তাররা উপসর্গহীন করোনা বলে এর ব্যাখ্যা দিলেও বাফুফে ঠিক নিশ্চিন্ত হতে পারছে না। তারা কয়েক দিনের মধ্যে বেসরকারি হাসপাতালে পরীক্ষা করিয়ে আক্রান্তদের ব্যাপারে নিশ্চিত হতে চায়। ধরা যাক, আগামীকাল ওই পরীক্ষা হলো এবং ১৮ জনের মধ্যে পাঁচজনের নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে। তখন তৈরি হবে নতুন সংকট—কোনটা সঠিক রিপোর্ট! তাঁরা প্রথমে যে ‘নেগেটিভ’ রিপোর্ট সঙ্গে এনেছিলেন সেটি, নাকি বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালের ‘করোনা পজিটিভ’ রিপোর্ট। বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালেরটা সঠিক হলে এত তাড়াতাড়িই বা নেগেটিভ হয় কী করে! আসলে করোনা পরীক্ষার ফাঁদে পড়েছে ফুটবল!

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা