kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

শিরোপার চৌকাঠে রিয়াল

১৫ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শিরোপার চৌকাঠে রিয়াল

গ্রানাদার মাঠে এবার হেরে গেছে বার্সেলোনা। রিয়াল মাদ্রিদকেও প্রায় পেয়ে বসেছিল তারা। গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া তো এমনি এমনি ম্যাচের সেরা হননি! শেষ পর্যন্ত ২-১ ব্যবধানের ঘাম ঝরানো জয়ে লা লিগা শিরোপার একেবারে দুয়ারে জিনেদিন জিদানের দল। শেষ দুই ম্যাচে দরকার মাত্র ২ পয়েন্ট। তবে অধিনায়ক সের্হিয়ো রামোস বৃহস্পতিবার নিজেদের মাঠে ভিয়ারিয়ালকে হারিয়েই করতে চান শিরোপা উৎসব, ‘আশা করছি বৃহস্পতিবার জয় দিয়ে শিরোপা উৎসব করতে পারব। তবে আমরা নির্ভার থাকতে পারি না। অসচেতন হলে ছন্দ হারাতে পারি। লিগ জেতাটা হবে আমাদের ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের ফল।’

এদিকে প্রিমিয়ার লিগে সেরা চারে থেকে চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলার দারুণ সুযোগ নষ্ট করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। সাউদাম্পটনের বিপক্ষে ৯৬ মিনিট পর্যন্ত ২-১ গোলে এগিয়ে ছিল তারা। ম্যানইউর দুই গোল মার্কাস রাশফোর্ড ও অ্যান্থনি মার্সিয়ালের। কিন্তু শেষ বাঁশির কিছুক্ষণ আগে কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে সমতা ফেরান মাইকেল ওবাফেমি। লকডাউনের পর প্রথমবার ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে আসা অ্যালেক্স ফার্গুসন মুষড়ে পড়েছিলেন তাতে। তাঁর সময়ে যে এভাবেই শেষবেলায় প্রতিপক্ষের বুক ভাঙত রেড ডেভিলরা। ৩৫ ম্যাচ শেষে লিভারপুলের পয়েন্ট ৯৩, ম্যানসিটির ৭২, চেলসির ৬০, লিস্টার সিটির ৫৯ আর ম্যানইউর ৫৯। এ অবস্থায় গোল গড়ে পাঁচে থাকা ম্যানইউর চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলতে অপেক্ষা করতে হবে শেষ তিন ম্যাচে প্রতিপক্ষের ভুলের ওপর। এ ছাড়া সিরি ‘এ’তে তোরিনোকে ৩-১ গোলে হারিয়ে দুইয়ে উঠে এসেছে ইন্টার মিলান। ৩২ ম্যাচ শেষে জুভেন্টাসের সঙ্গে তাদের ব্যবধান ৮ পয়েন্ট।

লকডাউনের পর লা লিগার ম্যাচ বাকি ছিল ১১টি। এই ১১ ম্যাচই ‘ফাইনাল’ ধরেছিলেন জিনেদিন জিদান। পরশু জিতলেন টানা নবম ফাইনাল। দশম মিনিটে রিয়ালকে এগিয়ে নেন ফারলান্দ মেন্দি। বাঁ প্রান্ত দিয়ে ডি বক্সে আচমকা লম্বা করে বল বাড়িয়ে ছুটে যান দারুণ ক্ষিপ্রতায়। দুরূহ কোণ থেকে জোরালো শটে বল পাঠান জালে। এই মৌসুমে রিয়ালের হয়ে ২১ জন গোল করলেন লা লিগায়। ১৬ মিনিটে লুকা মদরিচের ক্রসে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন করিম বেনজিমা। তবে বিরতির পর রিয়ালের অর্ধে আক্রমণের ঢেউ তুলেছিল গ্রানাদা। ৫০ মিনিটে মাঝমাঠে কাসেমিরোর হারানো বল ধরে এররেরা দ্রুত বল বাড়ান দারউইন মাচিসকে। থিবো কর্তোয়ার পায়ের ফাঁক দিয়ে বল জালে জড়ান তিনি। ৫০৭ মিনিট পর গোল হজম করলেন কর্তোয়া।

শেষ ১৫ মিনিট রিয়াল রক্ষণকে কাঁপিয়েই দিয়েছিল গ্রানাদা। ৮৫ মিনিটে গোলও পেতে পারত তারা। নাইজেরিয়ান মিডফিল্ডার রেমন আজিজের শট কোনো রকমে গোললাইনের সামনে থেকে ফিরিয়ে রিয়ালকে বাঁচান সের্হিয়ো রামোস। ওদিকে বেঞ্চে বসে থাকা গ্যারেথ বেল ম্যাচজুড়েই ব্যঙ্গ করে গেছেন জিদানকে। এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা