kalerkantho

সোমবার । ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭। ১০ আগস্ট ২০২০ । ১৯ জিলহজ ১৪৪১

বেশির ভাগ ক্রিকেটার ঘরেই থাকতে চান

১৫ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেশির ভাগ ক্রিকেটার  ঘরেই থাকতে চান

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ক্রিকেটারদের জন্য তৈরিই রাখা হয়েছিল সব। তবে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হওয়ায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তাঁদের সুযোগ-সুবিধা ব্যবহারে নিরুৎসাহিতই করে আসছিল খেলোয়াড়দের। তাতেই দেখা গেল কিছু কিছু ক্রিকেটার অন্য কোনো মাঠে অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন। মুশফিকুর রহিম যেমন ছুটে যান রাজধানীর বেরাইদে ফর্টিস গ্রুপের ফুটবল একাডেমি মাঠে। বালুচরে গিয়েও অনুশীলন করতে দেখা গেছে কয়েকজনকে। সম্ভবত এসবকে ভালো চোখে না দেখা দেশের সর্বোচ্চ ক্রিকেট প্রশাসন আবারও খেলোয়াড়দের জানিয়ে দিয়েছে, চাইলে এখনই বিসিবির যেকোনো ভেন্যু তাঁরা ব্যবহার করতে পারেন। তেমনটিই জানিয়েছেন বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী।

অবশ্য এখনো তাঁরা খেলোয়াড়দের বাসা থেকে বাইরে আসাকে উৎসাহিত করছেন না, ‘আমরা এখনো তাঁদের নিরুৎসাহিতই করছি। তবু দেখা যাচ্ছে, বিচ্ছিন্নভাবে কয়েকজন এখানে-সেখানে অনুশীলন করছেন। সে জন্যই আবার খেলোয়াড়দের সঙ্গে যোগাযোগ করে বলে দেওয়া হয়েছে, তাঁরা চাইলে ঈদুল আজহার আগেই বোর্ডের যেকোনো মাঠে অনুশীলনে আসতে পারেন।’ তবে সে জন্য স্বাস্থ্যবিধিসহ কিছু নিয়ম মানার কথাও মনে করিয়ে দিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী, ‘যে-ই অনুশীলনে আসুন, আমরা পরামর্শ দিচ্ছি তিনি যেন আমাদের ট্রেনারের অধীনেই তা করেন। তা ছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মানার সচেতনতাও নিশ্চয়ই সবার আছে।’ এই ঘোষণায় মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম কিংবা বিসিবির অন্যান্য মাঠ ক্রিকেটারদের জন্য উন্মুক্তই করে দেওয়া হলো। তাতে করে অনুশীলনে ক্রিকেটারদের ঢল নামবে, সেটিও মনে হয়নি নিজাম উদ্দিনের, ‘যোগাযোগ করার পর মনে হচ্ছে, এই সুযোগ নেওয়ার মতো খুব বেশি ক্রিকেটার নেই। বিচ্ছিন্নভাবে হয়তো আমাদের কয়েকজন ক্রিকেটারকে আপনারা নানা জায়গায় অনুশীলন করতে দেখেছেন। তবে আমরা যেটি বুঝেছি, বেশির ভাগ ক্রিকেটারই এখনো বাসা থেকে বের হওয়ার ঝুঁকি নিতে রাজি নন। নিজেদের ফিট রাখার কাজ তাঁরা বাসা থেকেই চালিয়ে যেতে চান। যাঁরা মাঠে আসতে চান, তাঁদের সুযোগ তো রইলই।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা