kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৪ আগস্ট ২০২০ । ২৩ জিলহজ ১৪৪১

এএফসি কাপ ভেন্যুর জট খোলেনি

৯ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এএফসি কাপ ভেন্যুর জট খোলেনি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : সূচি চূড়ান্ত হয়ে গেলেও এএফসি কাপের ভেন্যু জটিলতা কাটেনি। বসুন্ধরা কিংসের চাওয়া অনুযায়ী এখনো নিরপেক্ষ ভেন্যুতে ফেরেনি ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচগুলো।

একটি করে ম্যাচ হয়ে এই গ্রুপের খেলা স্থগিত হয়েছিল কভিড-১৯-এর কারণে। আগামী ২৩ অক্টোবর ফের খেলা শুরু হবে। ৪ নভেম্বরের মধ্যে প্রতিটি দলকে পাঁচটি করে ম্যাচ খেলে গ্রুপ পর্ব শেষ করতে হবে। কিন্তু খেলা হবে কোথায়? বসুন্ধরা কিংসের প্রেসিডেন্ট ইমরুল হাসান বলেছেন, ‘নিরপেক্ষ ভেন্যু নিয়ে এখনই নিশ্চিত করে কিছু বলা মুশকিল। তিন দেশের চার ক্লাবের মধ্যে কারা আগ্রহী তাদেরকে আবেদন করতে বলা হয়েছে। কারা এই মুহূর্তে এএফসির সব শর্ত পূরণ করতে পারবে, আমি জানি না।’ একটা ভেন্যুতে খেলা হবে এটা নিশ্চিত করলেও এএফসি গ্রুপের চার দলের সামনে স্বাগতিক হওয়ার সুযোগ উন্মুক্ত করে দিয়েছে। করোনার কারণে কিংস যে স্বাগতিক হওয়ার ঝুঁকি নিতে চায় না সেটা আগেই জানিয়ে দিয়েছিল এএফসিকে। ভারতের চেন্নাই সিটি এফসি ও মালদ্বীপের মাজিয়া স্পোর্টস কিংবা টিসি স্পোর্টস সুযোগটি নেবে কি না বলা যাচ্ছে না।

তবে স্বাগতিক হওয়ার হ্যাপা অনেক। এএফসির শর্ত অনুযায়ী, দুটি ম্যাচ ভেন্যু ও আলাদা প্র্যাকটিস ভেন্যু থাকতে হবেই। কারণ গ্রুপের শেষ দুটি ম্যাচ একই দিনে একই সময়ে শুরু করতে হবে। এই শর্তে মাত্র একটি ম্যাচ ভেন্যু নিয়ে মালদ্বীপের স্বাগতিক হওয়ার সুযোগ কম। চেন্নাই সিটি এফসির অবকাঠামো থাকলেও ভারতের ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতির কারণে তারা এগোবে কি না বলা মুশকিল। এই চার দলের কেউ হতে চাইলে আগামী ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে আবেদন করতে হবে। এরপর যাচাই-বাছাই করে ৩১ জুলাই সিদ্ধান্ত জানাবে এএফসি। কেউ আবেদন না করলে এএফসি নিরপেক্ষ ভেন্যুর পথে হাঁটবে। বসুন্ধরা কিংস কর্মকর্তাদের বিশ্বাস, এই করোনাকালে যাবতীয় শর্ত মেনে কেউ স্বাগতিক হতে চাইবে না। শেষ পর্যন্ত নিরপেক্ষ ভেন্যুই হবে সমাধানের সূত্র। সে রকম হলে কিংস প্রেসিডেন্টের পছন্দ মালয়েশিয়া কিংবা কাতার, ‘নিরপেক্ষ ভেন্যু হিসেবে আমার পছন্দ মালয়েশিয়া কিংবা কাতার। কাতার এই গ্রুপের বাছাই পর্বের ম্যাচগুলো আয়োজন করতে আগ্রহী বলে আমি জানি। দেখা যাক শেষ পর্যন্ত কী হয়।’ কাতার ২০২২ বিশ্বকাপের জন্য নতুন স্টেডিয়াম তৈরি করেছে। কনফেডারেশন কাপ ও বিশ্বকাপের আগে এসব স্টেডিয়ামে ম্যাচ খেলিয়ে ড্রেস রিহার্সাল করতে চায় বলে জানিয়েছে এএফসি কাপের স্পোর্টস মার্কেটিং এজেন্ট ‘লাগারদেরে স্পোর্টস’।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা