kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

ইউরোপিয়ান ফুটবল

লিভারপুলের আনন্দে কাঁটা বিঁধাল সিটি

৪ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



লিভারপুলের আনন্দে কাঁটা বিঁধাল সিটি

টানা পাঁচ ম্যাচ জিতে এবং বার্সেলোনার ভুলে শিরোপার যে হাতছানি পাচ্ছিল রিয়াল মাদ্রিদ পরশু তা মিলিয়ে যেতে যেতেও যায়নি। ম্যাচ শেষ হওয়ার ১১ মিনিট আগে সের্হিয়ো রামোসের পেনাল্টিতে গেতাফের প্রতিরোধ ভাঙে। তাতে এখন পাঁচ ম্যাচ বাকি থাকতে বার্সেলোনার চেয়ে ৪ পয়েন্ট এগিয়ে শীর্ষে নিজেদের আরো সুসংহত করল লস ব্লাংকোরা।

জিনেদিন জিদান যদিও বলেছেন, এখনো কিছুই জেতা হয়নি, বাকি পাঁচটি ম্যাচও তাঁদের জন্য ফাইনাল, ‘আজকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ৩টি পয়েন্ট পেলাম। এর বেশি আর কিছুই নয়। আমরা এখনো কিছুই জিতিনি। বাকি পাঁচটি ম্যাচই আমাদের জন্য ফাইনাল। আমি জানি এখানে শেষের আগে কিছুই বলা যায় না।’ ইংল্যান্ডে সেই ‘শেষ’ হয়ে গেছে। এর পরও পরশু যা হয়েছে তা নিয়ে সরগরম গোটা ফুটবলাঙ্গন। ম্যানচেস্টার সিটি ইত্তিহাদে চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলকে গার্ড অব অনার দিয়েছে ম্যাচের শুরুতে, ম্যাচে সেই আতিথেয়তার ছিটেফোঁটাও দেখায়নি। ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে পেপ গার্দিওলার দল মাত্রই শিরোপা জিতে মাঠে নামা ইয়ুর্গেন ক্লপ শিষ্যদের। লিভারপুল অবিশ্বাস্য ২৩ পয়েন্টের ব্যবধানে শিরোপা নিশ্চিত করেছে। ৩০ বছর পর যে শিরোপা নিয়ে উচ্ছ্বাসের শেষ নেই অলরেডদের মধ্যে। করোনা সংক্রমণের মধ্যে অবশ্য আনুষ্ঠানিক উত্সবটাই এখনো বাকি। এর মধ্যেই সিটির মাঠে গিয়ে এভাবে বিধ্বস্ত হওয়ার হিসাব মেলাতে পারছেন না অনেকেই। ক্লপ অবশ্য বলেছেন, ‘চ্যাম্পিয়ন হয়ে গেছি বলে মোটেও অমনোযোগী ছিলাম না আমরা এই ম্যাচে। আসলে ম্যানচেস্টার সিটি এমন একটা প্রতিপক্ষ যাদের বিপক্ষে ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তগুলোতে ভালো করতে না পারলে শাস্তি পেতেই হবে। আমরা সুযোগ পেয়েছি, কিন্তু সেগুলো পুরোপুরি কাজে লাগাতে পারিনি। কিন্তু ওরা প্রতিটা সুযোগে আমাদের চেয়ে বেশি কার্যকারিতা দেখিয়েছে।’

ম্যাচটা লিভারপুল চ্যাম্পিয়নের মতোই শুরু করেছিল, মোহামেদ সালাহ, ফিরমিনো গোলের সম্ভাবনাও জাগিয়েছিলেন। সেটা হলে গল্পটা অন্য রকমই হতে পারত। তা একেবারে বদলে যায় ২৫ মিনিটে মারিও গোমেজ রহিম স্টার্লিংকে ফাউল করে পেনাল্টি দিলে। কেভিন ডি ব্রুইন স্পটকিক থেকে সে গোলের পর দেখিয়েছেন খেলাটা কিভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। ৩৫ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে দ্রুতগতির এক কাউন্টার অ্যাটাক পরিণতি পায় স্টার্লিংয়ের ব্যবধান বাড়ানোর মধ্য দিয়ে। বিরতির আগেই স্কোরলাইন ৩-০ করে ফেলে তরুণ ফিলিপ ফোডেন। বক্সের মাথায় ডি ব্রুইনের সঙ্গে ওয়ান-টু খেলে দৃষ্টিনন্দন এক গোলে চ্যাম্পিয়নদের রাতটাকে বিভীষিকাময় করে তোলেন তিনি। দ্বিতীয়ার্ধে স্টার্লিংয়ের শট ক্লিয়ার করতে গিয়ে বদলি নামা অ্যালেক্স অক্সালেড চেম্বারলেনের আত্মঘাতী গোলে হালি পূর্ণ। ম্যাচ শেষে স্টার্লিংয়ের মন্তব্য, ‘আগামী মৌসুমটা আমরা এখান থেকেই শুরু করলাম।’ গার্দিওলা বলেছেন এ মৌসুমেই ‘এফএ কাপ আর চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচের আগে এই পারফরম্যান্স আমাদের আত্মবিশ্বাস জোগাবে। ওরা (লিভারপুল) আজ মোটেও এখানে শুধু উত্সব করতে আসেনি, জিতেই উত্সব করতে এসেছিল। সেখানে আমরা দেখিয়েছি আমরা কী পারি।’

স্পেনে রিয়াল মাদ্রিদ করোনা বিরতির পর খেলা শুরু হওয়া থেকেই ছন্দে। সেই পারফরম্যান্স পরশুই সবচেয়ে ম্লান দেখিয়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগ স্পটের লড়াইয়ে থাকা গেতাফের বিপক্ষে। মাদ্রিদের ‘ছোট’ এই দলটি এদিন রিয়ালের মাঠ থেকে পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে না পারায় নিশ্চিতভাবেই হতাশ হয়েছে। শুরুতে তারা সুযোগও তৈরি করেছিল। থিবো কর্তোয়ার দারুণ সেভ রিয়ালকে বাঁচিয়েছে। অন্য প্রান্তে ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে হতাশ করেছেন গেতাফে গোলরক্ষক। ম্যাচ যখন সমতায় শেষের পথে গড়াচ্ছিল, ৭৯ মিনিটে বক্সের ভেতর মাতিয়াস অলিভেরার ফাউল দানি কারভাহালকে—আর তাতেই রিয়ালের জয়ের পথ খুলে যায়। অধিনায়ক রামোস স্পটকিক থেকে বল জালে জড়াতে একটুও ভুল করেননি। গোলডটকম

 

আরো এগিয়ে গেল রিয়াল

থিবো কর্তোয়ার দারুণ সেভ রিয়ালকে বাঁচিয়েছে। অন্য প্রান্তে ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে হতাশ করেছেন গেতাফে গোলরক্ষক। ম্যাচ যখন সমতায় শেষের পথে গড়াচ্ছিল, ৭৯ মিনিটে বক্সের ভেতর মাতিয়াস অলিভেরার ফাউল দানি কারভাহালকে—আর তাতেই রিয়ালের জয়ের পথ খুলে যায়। অধিনায়ক রামোস স্পটকিক থেকে বল জালে জড়াতে একটুও ভুল করেননি।


মন্তব্য



সাতদিনের সেরা