kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭। ৭ আগস্ট  ২০২০। ১৬ জিলহজ ১৪৪১

কোচদের বিদায়

একাডেমির ভবিষ্যত্ অন্ধকারে

২ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : করোনা পরিস্থিতিতে তিন মাস বিরতি দিয়ে হলেও জাতীয় দলের কোচ জেমি ডে’র চুক্তি নবায়ন করছে ফুটবল ফেডারেশন। তবে একাডেমির দুই ব্রিটিশ কোচ অ্যান্ড্রু টার্নার ও বব রাইলসের ফেরা হচ্ছে না। গত এপ্রিলে তাঁদের সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়েছে বাফুফের। জুন পর্যন্ত নতুন চুক্তির আশায় থেকে অবশেষে কাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক বিদায় বলেছেন টার্নার।

‘দক্ষিণ এশিয়ায় কভিড নাইনটিন পরিস্থিতির এখনো উন্নতির কোনো সম্ভাবনা না থাকায় বাংলাদেশের যুব ফুটবলের সঙ্গে আমার সম্পর্ক কার্যত শেষ হয়ে গেল। এখন যুক্তরাজ্যেই অথবা বাইরে নতুন কোনো প্রকল্পে যুক্ত হওয়ার অপেক্ষায়’—লিখেছেন গত অনূর্ধ্ব-১৮ সাফ ও এএফসি চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ দলের দায়িত্বে থাকা টার্নার। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈমও জানিয়েছেন বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে একাডেমি পুনরায় শুরু করা নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব নয় বলেই কোচদের চুক্তি বাড়ানোর কথা ভাবেননি তাঁরা, ‘এই মুহৃর্তে আমরা জানি না খেলাই কবে শুরু করতে পারব। তারপর তো একাডেমি চালুর ব্যাপার। আগামী বছর যদি সেটা হয় তখন না হয় আমরা যোগাযোগ করব এই কোচদের সঙ্গে।’ যদিও কাল বয়সভিত্তিক পর্যায়ের স্থানীয় কোচ মোস্তফা আনোয়ার পারভেজকে ‘ইয়ুথ ডেভেলপম্যান্ট’ প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সারা দেশের ১২০ টি একাডেমিকে নিবন্ধিত করার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বাফুফের নিজস্ব একাডেমির ভবিষ্যতই শুধু অন্ধকারে। ২০১৫ সালে সিলেটে গড়া একাডেমি বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর ঢাকার বেরাইদে ফোর্টিজ গ্রুপের অবকাঠামো ব্যবহার করে নতুন এই একাডেমি চালু করা হয়। ব্রিটিশ দুই কোচ নিয়োগ পেয়েছিলেন গত বছর। খেলোয়াড়দের সঙ্গে তাঁরাও সংক্রমণের শুরু থেকেই ছিলেন ছুটিতে। ফোর্টিজ একাডেমিতে এরই মধ্যে করোনা রোগীদের জন্য আইসোলেশন ইউনিট হয়েছে। ফুটবলারদের সহসা ফেরা তাই অনিশ্চিত, দুই কোচের বিদায়ে অনিশ্চিত একাডেমির ভবিষ্যত্ও।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা