kalerkantho

রবিবার । ২৮ আষাঢ় ১৪২৭। ১২ জুলাই ২০২০। ২০ জিলকদ ১৪৪১

ঘরের মাঠের সুবিধা এখন অতীত

৩০ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফুটবলে নিজেদের চেনা মাঠ আর দর্শক সমর্থনে উদ্দীপ্ত থাকে ক্লাবগুলো। প্রতিপক্ষের চেয়ে নিজেদের মাঠে জয়ের হার এ জন্যই বেশি। করোনা-পরবর্তী যুগে সেই সুবিধা অতীত হতে চলেছে হয়তো। দর্শকহীন মাঠে উল্টো দাপট প্রতিপক্ষের। ছোট্ট এক পরিসংখ্যানেই মিলবে উত্তরটা। বুন্দেসলিগা বন্ধের আগে ঘরের মাঠে ক্লাবগুলোর জয় ছিল ৪২.৭৯ শতাংশ। গত দুই সপ্তাহে লিগ ফেরার পর জয়ের হার নেমে এসেছে ১৮.৫১ শতাংশে! উল্টো স্বাগতিকদের চেপে ধরে বেশি আক্রমণাত্মক থাকে সফরে আসা দলগুলোই।

বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের ‘হলুদ দেয়াল’ ভয়েরই কারণ প্রতিপক্ষের। দর্শকহীন গ্যালারিতে ম্যাচগুলো হওয়ায় বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে দেয়ালটা ছিল না সিগনাল ইদুনা পার্কে। তবে বিশাল ব্যানার টাঙিয়ে দেয়াল বানানোর একটা চেষ্টা করেছিল ডর্টমুন্ড। লাভ হয়নি তাতে। শেষ পর্যন্ত ১-০ গোলের জয়ে শিরোপার আরো কাছে বায়ার্ন। শেষ দিকে রবার্ত লেভানদোস্কির একটি শট পোস্টে লেগে না ফিরলে জয়ের ব্যবধান হতে পারত ২-০। এ ছাড়া বায়ার লেভারকুসেনের মাঠে উলফসবুর্গ জিতেছে ৪-১ গোলে। অগসবুর্গ ৩-০ গোলে শালকেকে ও হার্থা বার্লিন ৩-০ গোলে জিতেছে হফেনহেইমের মাঠে।

লকডাউন ওঠার পর শুরু হওয়া বুন্দেসলিগায় ম্যাচ হয়েছে ২৭টি। সফরকারী দলের জয় ১২টি। ঘরের মাঠে দলগুলো জিতেছে মাত্র ৫ ম্যাচ। নিজেদের মাঠে জয়ের হার মাত্র ১৮.৫১ শতাংশ। অ্যাওয়ে দলের ৪৯ গোলের বিপরীতে স্বাগতিকদের গোল ৩৫টি। লকডাউন শুরুর আগের ছবিটা দেখে নেওয়া যাক। সে সময়ে বুন্দেসলিগায় হয়েছিল ২২২ ম্যাচ। ঘরের মাঠে দলগুলো জিতেছে ৯৫ ম্যাচ। সফরকারীদের জয় ৮০টি। নিজেদের মাঠে জয়ের হার ৪২.৭৯ শতাংশ। এ পরিসংখ্যানই বলছে দর্শক না থাকায় ঘরের মাঠেই এখন অসহায় স্বাগতিকরা। মেইল অনলাইন

বুন্দেসলিগা

লকডাউনের আগে

ম্যাচ : ২২২

নিজ মাঠে জয় : ৯৫ (৪২.৭৯%)

প্রতিপক্ষের মাঠে জয় : ৮০ (৩৬.০৩%)

ড্র : ৪৭ (২১.১৭%)

লকডাউনের পরে

ম্যাচ : ২৭

নিজ মাঠে জয় : ৫ (১৮.৫১%)

প্রতিপক্ষের মাঠে জয় : ১২ (৪৪.৪৪%)

ড্র : ১০ (৩৭.০৩%)

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা