kalerkantho

বুধবার । ১২ কার্তিক ১৪২৭। ২৮ অক্টোবর ২০২০। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

মেয়েদের ফুটবলেও ছোটদের পাশে বড়রা

২৩ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : ছেলে ফুটবলারদের সংগঠনের পাত্তা নেই অথচ এক্স উইমেনস ফুটবল প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন দাঁড়িয়ে গেছে অসহায় নারী ফুটবলারদের পাশে। মেয়ে ফুটবলারদের বেশির ভাগই দরিদ্র পরিবার থেকে আসে। এ রকম ৪০০ দুস্থ ফুটবলারের দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে নারী ফুটবলারদের এ সংগঠন।

দেশের মেয়ে ফুটবলের ইতিহাসে সুদীর্ঘ অতীত নেই, তাদের সাবেকদের সংগঠনের জন্ম মাত্র বছর দুয়েক আগে। সেই তুলনায় ছেলেদের ফুটবলে দীর্ঘ অতীত, সোনালি অতীতের পর এখন ফ্যাকাশে বর্তমান। মাঠের হতশ্রী ফুটবলের মতো ছন্নছাড়া ফুটবল খেলোয়াড় কল্যাণ সমিতি যেন তার প্রমাণ। করোনা মহামারির দুর্যোগেও তাদের হৃদয় আড়ষ্ঠ, হাত অবগুণ্ঠিত। দুর্যোগেও ফুটবলারদের কল্যাণে কোনো ভূমিকা নেই এ সংগঠনের। তার প্রেসিডেন্ট ইকবাল হোসেন ফুটবল ফেডারেশনের সদস্য, বাফুফের চোখ-কান বন্ধ করে রাখার চরিত্রটাই যেন ভর করেছে তার ওপরও। কত অসহায় ফুটবলারের আহাজারি বাফুফের কানে পৌঁছায় না। তারা নাকি চেয়ে আছে ফিফার দয়া-দাক্ষিণ্যের ওপর! দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলার (তাদের দাবি) ফেডারেশনের কী করুণ হাল!

সে যা-ই হোক, এক্স উইমেন্স ফুটবল প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন নানা সীমাবদ্ধতার মধ্যেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বসুন্ধরা কিংস নারী ফুটবল দলের কোচ মাহমুদা শরীফা অদিতি বলছেন তাঁদের দায়িত্ববোধের কথা, ‘আমাদের হয়তো অনেক টাকা-পয়সা নেই, তবে যা আছে তা দিয়ে প্রতিটি জেলায় পাঁচ-সাতজনকে ঈদ উপহার পাঠাতে পারছি। এখন আমরা অনেকেই তো বেশ ভালো আছি, হাতে টাকা-পয়সাও আছে। তাদের অনুদানেই প্রায় দেড় লাখ টাকা খরচ করে ঈদের সময়টা যেন ভালো কাটে সেই ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমরা মনে করি, অসহায় ছোট বোনদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব।

মন্তব্য