kalerkantho

শুক্রবার । ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৫ জুন ২০২০। ১২ শাওয়াল ১৪৪১

চলে গেলেন ‘মিস্টার ফুটবল’

৮ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চলে গেলেন ‘মিস্টার ফুটবল’

স্প্যানিশ তিন পরাশক্তি রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা আর অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের কোচ ছিলেন তিনি। এমন কীর্তি নেই আর কারো। ‘মিস্টার ফুটবল’খ্যাত সেই সার্বিয়ান রাদোমির আন্তিচ আর নেই। প্যানক্রিয়েটাইটিস রোগে ভুগে ৭১ বছর বয়সে গত পরশু মাদ্রিদের একটি ক্লিনিকে মারা গেছেন তিনি। ঐতিহ্যবাহী তিনটি ক্লাবই গভীর শোক জানিয়েছে আন্তিচের মৃত্যুতে।

১৯৬৭ থেকে ১৯৮৪ পর্যন্ত খেলোয়াড়ি জীবনটাও সমৃদ্ধ আন্তিচের। ১৯৮৩ সালে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে এই সেন্ট্রাল ডিফেন্ডারের গোলেই ইংলিশ প্রথম বিভাগে খেলা নিশ্চিত হয়েছিল লুটন টাউনের।

আন্তিচের কোচিং ক্যারিয়ার শুরু ১৯৮৮ সালে রিয়াল জারাগোজায়। তাদের উয়েফা কাপে তোলায় নজরে পড়েন রিয়াল মাদ্রিদের। ১৯৯১ সালে কিংবদন্তি আলফ্রেদো দ্য স্তেফানোর চেয়ারে রিয়াল মাদ্রিদে বসায় তাঁকে। লিগে টানা তিন ম্যাচ হারা রিয়াল সেবার ইউরোপিয়ান কাপ কোয়ার্টার ফাইনালে হেরে গিয়েছিল স্পার্তাক মস্কোর কাছে। তাঁর হাত ধরে পরের মৌসুমে ১৯ ম্যাচ শেষে লা লিগায় ৭ পয়েন্টে এগিয়ে ছিল রিয়াল। তার পরও ছাঁটাই হন বিস্ময়করভবে।

১৯৯৫-৯৬ মৌসুমে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের দায়িত্ব নেন আন্তিচ। সবচেয়ে সফলও হন সেখানে। ১৯৯৫-৯৬ মৌসুমে অ্যাতলেতিকো লা লিগা ও কোপা দে রে জিতে তাঁর হাত ধরে। ক্লাবটির বর্তমান কোচ ডিয়েগো সিমিওনিকে সে সময় অধিনায়ক করে ছিলেন তিনিই। ২০০২-০৩ মৌসুমে আন্তিচ বার্সেলোনায় আসেন লুই ফন হালের জায়গায়। কাতালানরা লা লিগায় তখন ১৫ নম্বরে। শেষ পর্যন্ত ষষ্ঠ স্থানে থেকে বার্সা শেষ করে লিগ, পৌঁছে উয়েফা কাপেও। মার্কা

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা