kalerkantho

শুক্রবার । ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৫ জুন ২০২০। ১২ শাওয়াল ১৪৪১

ঘরে বসেও খেলার সঙ্গে

সামীউর রহমান   

১ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ঘরে বসেও খেলার সঙ্গে

জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হতে মানা। কভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণের দিনগুলোতে ঘরবন্দি মানুষের প্রধান ভরসা হয়ে উঠেছে ইন্টারনেট। অদৃশ্য তরঙ্গে ভেসে আসছে গান, নাটক, সিনেমা, তথ্যচিত্র আর খবরসহ অনেক কিছু। ঘরবন্দির এই দিনগুলোতে দুধের স্বাদ ঘোলে মেটানোর মতো করেই বাইরে খেলতে না গিয়েও দেখে নিতে পারেন খেলা নিয়ে বেশ কিছু চলচ্চিত্র কিংবা ওয়েব সিরিজ। বাংলা, হিন্দি, ইংরেজিসহ অনেক ভাষাতেই আছে খেলা কিংবা খেলোয়াড়ের জীবন নিয়ে অনেক ভিজ্যুয়াল কন্টেন্ট, যেসব দেখলে জানা যাবে প্রিয় দল, খেলা বা খেলোয়াড়ের অজানা অনেক অধ্যায়ই।

ফুটবল যদি হয় আপনার ধ্যান-জ্ঞান, তাহলেও আমাজন প্রাইমে আছে আপনার জন্য ‘অল অর নাথিং’। ম্যানচেস্টার সিটির ২০১৭-১৮ মৌসুমের দুরন্ত অভিযানের দুর্লভ সব মুহূর্ত নিয়ে সাজানো এই তথ্যচিত্রে লকার রুমে পেপ গার্দিওলার ‘পেপটক’ থেকে শুরু করে খেলোয়াড়দের সাক্ষাৎকার, সবই পেয়ে যাবেন। জেনে অবাক হবেন, প্রিমিয়ার লিগের সবগুলো মাঠেই গিয়েছিল এই তথ্যচিত্র দলের ক্যামেরা, যেতে পারেনি শুধু একটা মাঠে! সেটা ওল্ড ট্র্যাফোর্ড, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তাদের ‘গোলমেলে প্রতিবেশী’কে ক্যামেরা ঢোকাতে দেয়নি নিজেদের মাঠের টানেল আর ড্রেসিংরুমে।

নেটফ্লিক্সে পেয়ে যাবেন আরেক ওয়েব সিরিজ ‘সিলেকশন ডে’। সারা জীবন তো দেখে এসেছেন, মা-বাবা জোর করে ছেলে-মেয়েকে ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার বানাতে চান আর সন্তানদের আগ্রহ খেলোয়াড় হওয়ার। ‘সিলেকশন ডে’ বলে উল্টো গল্প! এক কড়া শাসনের বাবা, যে নিজের দুই ছেলেকে বানাতে চান ক্রিকেটার, সোজা করে বললে ব্যাটসম্যান। এ জন্য তাঁর নানা চেষ্টা, ওদিকে ছেলেগুলোর স্বপ্ন অন্য। দুই কিশোরের জীবন আর ক্রিকেট নিয়ে বুকার পুরস্কারজয়ী অরবিন্দ আদিগার উপন্যাস ‘সিলেকশন ডে’ অবলম্বনে নির্মিত এই ওয়েব সিরিজের মুখ্য চরিত্রের সঙ্গে ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটার যশস্বী জয়সওয়ালের জীবনের অনেক মিল।

লম্বা সিরিজ দেখার ধৈর্য নেই, তিন ঘণ্টার সিনেমাতেই সন্তুষ্ট? এ রকম দর্শকদের পছন্দ হতে পারে ‘এম এস ধোনি : দি আনটোল্ড স্টোরি’, ‘দাঙ্গাল’, ‘ভাগ মিলখা ভাগ’-এর মতো ছবিগুলো। বলিউডি সিনেমার মোড়কে মহেন্দ্র সিং ধোনি, গীতা ফোগাত আর মিলখা সিংয়ের জীবনের গল্পের বয়ানে খুঁজে পেতে পারেন অনুপ্রেরণাও। নাচে-গানে ভরা বলিউডি সিনেমা যদি ভালো না লাগে, দেখতে চান ‘সিরিয়াস’ কিছু তাহলে চোখ রাখতে পারেন নিচের তালিকায়।

ইন্টারনেটে মুভি ডাটাবেইস বা আইএমডিবি যে সেরা ১০০ স্পোর্টস ছবির তালিকা করেছে, তার শীর্ষে আছে ‘রেজিং বুল’। মার্টিন স্করসিস, রবার্ট ডি নিরো, জো পেসকি; গায়ে কাঁটা দেওয়ার জন্য এই নামগুলোই যথেষ্ট। মার্কিন পেশাদার বক্সার জ্যাক লামোত্তার জীবনকাহিনি নিয়ে বানানো এই চলচ্চিত্রটিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করে অস্কার জিতেছিলেন রবার্ট ডি নিরো। স্থবির জীবনে গতির ঝড়ের আমেজ পেতে দেখতে পারেন ‘রাশ’ ছবিটি। দুই ফর্মুলা ওয়ান কিংবদন্তি নিকি লাউডা আর জেমস হান্টের প্রতিদ্বন্দ্বিতা, রসায়ন, ফর্মুলা ওয়ান রেসিংয়ের জগৎসহ অনেক কিছুই জানা হয়ে যাবে ১২৩ মিনিটে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাস করা এক মেক্সিকান অবৈধ অভিবাসীর ফুটবল তারকা হয়ে ওঠার গল্পটা দেখতে পারেন ‘গোল’ ছবিতে। সান্তিয়াগো মুনিয়েজের লস অ্যাঞ্জেলেসের স্ট্রিট ফুটবলার থেকে নিউক্যাসলে খেলার গল্পটা আরো লম্বা হয় পরের পর্বে, যেখানে মুনিয়েজ সুযোগ পায় রিয়াল মাদ্রিদে। এই ছবিতে ক্যামিও রোলে দেখা যাবে ডেভিড বেকহাম, রাউল গঞ্জালেস, জিনেদিন জিদানসহ অনেক ফুটবল তারকাকেই।

ঘরে থাকার দিনগুলো ফুরাবে একদিন। আবার মাঠে গড়াবে খেলা। সেসব দিনগুলোর জন্য তৈরি হতে ঘরে থাকার এসব দিনরাত্রিতে দেখতে পারেন এই সিনেমাগুলো। পাবেন অনুপ্রেরণা, জানবেন অনেক কিছু।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা