kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৬  মে ২০২০। ২ শাওয়াল ১৪৪১

ফুটবলারদের মহানুভবতা

৩০ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পৃথিবীটাই অচল এখন। সময়টা শত্রুতার নয়, কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে অদৃশ্য এক শক্তির বিপক্ষে লড়াইয়ের। তাই নিজেদের দ্বন্দ্ব, মান-অভিমান ভুলে এক কাতারে রিয়াল মাদ্রিদের সের্হিয়ো রামোস ও বার্সেলোনার তারকা জেরার্দ পিকে। স্পেনে করোনা আক্রান্তদের সহায়তায় ‘ভার্চুয়াল মিউজিক ফেস্টিভালে’ অংশ নিয়ে ছয় লাখ ৪০ হাজার ইউরোর বেশি তহবিল সংগ্রহে সাহায্য করেছেন দুজন। সঙ্গী ছিলেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার সান্তি কাযোরলাও। মৃত্যুপুরী হয়ে ওঠা ইতালি হিমশিম খাচ্ছে আরো বেশি। এমন সময়ে সিরি ‘এ’র শীর্ষ দল জুভেন্টাসের পাশে দাঁড়িয়েছেন ফুটবলাররা। আগামী চার মাসের বেতন নেবেন না ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোরা। তাতে বাঁচবে ৯০ মিলিয়ন ইউরো, যা খরচ হবে কর্মচারীদের বেতন ও নানা ফি পরিশোধে।

পরশু রাতে স্পেনের শীর্ষ সংগীতশিল্পীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘ভার্চুয়াল মিউজিক ফেস্টিভাল’। ভিডিও কনফারেন্সে সেই অনুষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন সের্হিয়ো রামোস, জেরার্দ পিকে আর সান্তি কাযোরলা। তিনজনই আছেন সেলফ আইসোলেশনে। অনুষ্ঠানের আয়োজকদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন তাঁরা। যোগ দিয়েছিলেন রিয়াল মাদ্রিদের লুকাস ভাসকেস আর স্প্যানিশ সাবেক তারকা ফার্নান্দো মরিয়েন্তেসও। এমন আয়োজন থেকে সংগ্রহ হয়েছে ছয় লাখ ৪০ হাজার ইউরোর বেশি, যা খরচ হবে চিকিৎসা সামগ্রী কেনার কাজে।

করোনার কারণে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত জুভেন্টাসকে সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছেন ফুটবলার ও কোচ মরিসিও সারি। অধিনায়ক গিওর্গি কিয়েল্লিনি প্রথমে চার মাস বেতন না নেওয়ার ভাবনা আলোচনা করেন ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে। এরপর ফোন দেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো আর জিয়ানলুইজি বুফনকে। এমন প্রস্তাবে এক বাক্যে রাজি হয়ে যান দুই তারকা। ক্লাবের অন্য খেলোয়াড়রাও আপত্তি করেননি কোনো। দুঃসময়ে এভাবে সবাইকে এগিয়ে আসতে দেখে এক বিবৃতিতে জুভেন্টাসের কৃতজ্ঞতা, ‘এই অর্থনৈতিক প্রভাবের বিষয়টি একটি জায়গায় দাঁড়িয়েছে সমঝোতার মাধ্যমে। মার্চ থেকে জুন মাসের বেতন নিচ্ছেন না ফুটবলারা। বেঁচে যাচ্ছে ৯০ মিলিয়ন ইউরো। কঠিন সময়ে ক্লাবের পাশে দাঁড়ানোয় খেলোয়াড়-কোচদের ধন্যবাদ জানাচ্ছে জুভেন্টাস।’ ডেইলি মেইল

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা