kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

আশা জাগিয়ে সেই হার

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আশা জাগিয়ে সেই হার

ক্রীড়া প্রতিবেদক : পাকিস্তানকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসে জ্বালানি পেয়েছিল সালমা খাতুনের দল। তবে প্রস্তুতি ম্যাচ আর বিশ্বকাপের মঞ্চ এক নয়। গতকাল পার্থে ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ১৮ রানের হারে সেটা ভালোভাবে বুঝেছে বাংলাদেশ। টস হেরে ব্যাট করা ভারত ৬ উইকেটে পায় ১৪২ রানের পুঁজি। জবাবে বাংলাদেশের মেয়েরা আশা জাগিয়েও থামে ৮ উইকেটে ১২৪ রানে। অস্ট্রেলিয়ার পর বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমিফাইনালের পথে অনেকখানি এগিয়ে গেল হারমানপ্রিত কাউরের দল। পাশাপাশি এশিয়া কাপে দুইবার সালমা-রুমানাদের কাছে হারের প্রতিশোধও নিয়েছে ভারত।

জ্বরে ভুগে ভারতীয় অন্যতম সেরা ব্যাটার স্মৃতি মান্ধানা খেলেননি গতকাল। সেই অভাবটা বুঝতে দেননি ১৬ বছরের কিশোরী শেফালি ভার্মা। মাত্র ১৭ বলে ২ বাউন্ডারি ৪ ছক্কায় ৩৯ করে ঝোড়ো শুরু এনে দেন ভারতকে। তাঁর বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে পাওয়ার প্লে’তে ৫৪ করে বড় স্কোরের ভিত পায় তারা। ম্যাচ সেরা শেফালিকে উইকেটের পেছনে ক্যাচ বানিয়ে স্বস্তি এনে দেন পান্না ঘোষ। তাঁর বলেই অধিনায়ক হারমানপ্রিত ৮ করে ক্যাচ দিলে রানের গতি কমে ভারতের। শেষ পর্যন্ত তারা থামে ৬ উইকেটে ১৪২ রানে। ২টি করে উইকেট সালমা খাতুন ও পান্না ঘোষের।

শেফালির মতো মারকুটে ব্যাটার নেই বাংলাদেশের। তাই বলে টি-টোয়েন্টির মতো খেলায় ১৪৩ তাড়া করতে গিয়ে ছক্কাও মারতে পারবেন না কেউ? সালমার দল পিছিয়ে যায় এখানেই। নিগার সুলতানার ২৬ বলে ৫ বাউন্ডারিতে ৩৫, মুরশিদা খাতুনের ২৬ বলে ৪ বাউন্ডারিতে ৩০ আর ফাহিমা খাতুনের ১৩ বলে ২ বাউন্ডারিতে ১৭ রানে লড়াই করেছে বাংলাদেশ, কিন্তু জেতার জন্য যথেষ্ট ছিল না সেটা। লেগ স্পিনার পুনম যাদব ১৮ রানে ৩ উইকেট নিয়ে বেঁধে রেখেছিলেন বাংলাদেশকে।

গত দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কোনো জয় নেই বাংলাদেশ নারী দলের। ২০১৪ সালে নিজেদের মাটিতে হওয়া বিশ্বকাপে জয় শুধু শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। লঙ্কানরা এবারও আছে বাংলাদেশের সঙ্গে গ্রুপ ‘এ’তে। আরো আছে অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ড। প্রথম ম্যাচে হেরে কঠিন এই গ্রুপ থেকে সেমিফাইনাল খেলাটা কঠিনই হলো সালমাদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ভারত : ২০ ওভারে ১৪২/৬ (শেফালি ৩৯, জেমিমা ৩৪, কৃষ্ণমূর্তি ২০*; সালমা ২/২৫, পান্না ২/২৫)।

বাংলাদেশ : ২০ ওভারে ১২৪/৮ (নিগার ৩৫, মুরশিদা ৩০, ফাহিমা ১৭; পুনম ৩/১৮, শিখা ২/১৪)।

ফল : ভারত ১৮ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা : শেফালি ভার্মা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা