kalerkantho

শনিবার । ২১ চৈত্র ১৪২৬। ৪ এপ্রিল ২০২০। ৯ শাবান ১৪৪১

১৫ জনের দলে ৭ বদল!

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



১৫ জনের দলে ৭ বদল!

ক্রীড়া প্রতিবেদক : সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজের পর পেরিয়েছে প্রায় সাত মাস। পরিবর্তন তাই প্রত্যাশিত। তাই বলে ১৫ সদস্যের স্কোয়াডে সাতটি অদল-বদল!

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম দুই ওয়ানডের জন্য কাল ঘোষণা করা হয়েছে বাংলাদেশ দল। সেখানেই এত এত বদল। জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইনজুরির কারণে সিরিজ মিস করা মাশরাফি বিন মর্তুজা ফিরেছেন। ফিরেছেন পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনও। এ দুজনের প্রত্যাবর্তন দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ মানছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন, ‘মাশরাফিকে ফিরে পাওয়া দারুণ ব্যাপার। ওর অভিজ্ঞতা ও নেতৃত্ব আমাদের ওয়ানডে ক্রিকেটের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। দলের ভারসাম্যের জন্য সাইফউদ্দিনের ফেরাও।’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বশেষ সেই স্কোয়াড থেকে এবার বাদ দেওয়া হয় সাত জনকে—এনামুল হক, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন, সৌম্য সরকার, রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ ও ফরহাদ রেজা। মাশরাফি ও সাইফের পাশাপাশি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রত্যাবর্তন লিটন দাসের। বিয়ের কারণে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজে ছুটি নিয়েছিলেন। ওয়ানডে ফরম্যাটে ফেরানো হয়েছে আল-আমিন হোসেনকে। ভারত সফরে জাতীয় দলে ডাক পান সাড়ে তিন বছর পর। ছিলেন পাকিস্তান সফরেও। টেস্ট-টি টোয়েন্টি খেললেও ৫০ ওভারের ফরম্যাটে ফিরলেন চার বছরের বেশি সময় পর। ২০১৫ সালের নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এই পেসার খেলেছিলেন সর্বশেষ। 

এ ছাড়া ওয়ানডে স্কোয়াডে আবার ডাকা হয় ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেনকে; কাল টেস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৭১ রানের ঝলমলে ইনিংস খেলেছেন যিনি। আর সাম্প্রতিক সময়ে টি-টোয়েন্টিতে সাফল্য পাওয়া নাঈম শেখ ও আফিফ হোসেনকে প্রথমবারের মতো ডাকা হয় ওয়ানডে স্কোয়াডে। সিলেটে ১ ও ৩ মার্চের সেই দুটি ম্যাচের জন্য এ ত্রয়ীকে নিয়ে আশাবাদী মিনহাজুল, ‘আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ক্রিকেটের সাম্প্রতিক ফর্মের কারণে শান্তকে (নাজমুল) দলে নিয়েছি। আর ছোট ফরম্যাটের ক্রিকেটে নাঈম ও আফিফ আমাদের দীর্ঘদিনের পরিকল্পনায় রয়েছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা