kalerkantho

শনিবার। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৫ ডিসেম্বর ২০২০। ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

এনগিদি জাদুতে নাটকীয় জয়

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এনগিদি জাদুতে নাটকীয় জয়

‘এ ধরনের ম্যাচ দশবারে দশবার জেতা উচিত আমাদের। কিন্তু হেরে গেলাম। শিক্ষাটা কাজে লাগাতে হবে।’ ইস্ট লন্ডনে ১ রানে হারের পর হতাশা লুকাতে পারছিলেন না এউইন মরগান। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে শেষ ৭ বলে জয়ের জন্য দরকার ছিল ৭ রান। হাতে ৫ উইকেট। এই ম্যাচও অবিশ্বাস্যভাবে ১ রানে হেরেছে ইংল্যান্ড! অধিনায়ক তো আফসোস করবেনই।

ইস্ট লন্ডনে দক্ষিণ আফ্রিকার রোমাঞ্চকর জয়ের নায়ক লুঙ্গি এনগিদি। ১৯তম ওভারের শেষ বলে আউট হয়েছিলেন এউইন মরগান। ১৭৭ রানের লক্ষ্যে এনগিদির শেষ ওভারে ইংল্যান্ডের দরকার তখন ৭ রান। প্রথম বলে ২ রান টম কারানের। পরের বল তুলে মারতে গিয়ে ডেভিড মিলারের তালুবন্দি কারান। আশা জেগে ওঠে প্রোটিয়াদের। অফকাটার তৃতীয় বল থেকে রান পাননি মঈন আলী। ৩ বলে দরকার তখন ৫। চতুর্থ বলে আসে ২ রান। ইয়র্কার পঞ্চম বলে বোল্ড মঈন। ম্যাচ সুপার ওভারে নিতেও শেষ বলে লাগত ২। কিন্তু আদিল রশিদ দ্বিতীয় রানের প্রচেষ্টায় রান আউট! ১ রানের দমবন্ধ করা জয় কুইন্টন ডি ককের দলের। ম্যাচ শেষে তাই ডি ককের সন্তুষ্টি, ‘ইস্ট লন্ডনে শেষ ৫ ওভার ব্যাট করা কঠিন। ম্যাচ যেভাবে এগিয়ে চলেছিল তাতে নিয়ন্ত্রণ ছিল না কারো হাতে। শেষ বলে ১ রানে জেতাটা রোমাঞ্চের। ভীষণ খুশি আমি।’

শুরুতে ব্যাট করে ৮ উইকেটে ১৭৬ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। তেম্বা বাভুমা ২৭ বলে ৪৩, কুইন্টন ডি কক ১৫ বলে ৩১ আর ফন দার দুসেনের ব্যাট থেকে আসে ২৬ বলে ৩১। ক্রিস জর্ডানের উইকেট দুটি। জবাবে নবম ওভারেই ১ উইকেটে ৯১ করেছিল ইংল্যান্ড। ৩৮ বলে ৭০ রানের ঝোড়ো ইনিংস জেসন রয়ের। রয় ফিরলেও ৩৪ বলে ৫২ করে ইংলিশদের সহজ জয়ের পথে রাখেন মরগান। ১৯তম ওভারের শেষ বলে বিউরেন হেন্ডরিকসকে তুলে মারতে গিয়ে ওয়াইড লংঅনে ক্যাচ তুলে দেন মরগান। এরপর এনগিদির সেই রোমাঞ্চকর ওভার। ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরাও তিনি।  ক্রিকইনফো

মন্তব্য