kalerkantho

রবিবার । ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৩ ফাল্গুন ১৪২৬। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪১

অলরাউন্ডার ভূমিকাতে স্বচ্ছন্দ সৌম্য

৩০ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অলরাউন্ডার ভূমিকাতে স্বচ্ছন্দ সৌম্য

ক্রীড়া প্রতিবেদক : তাঁর প্রতিভায় বরাবরের আস্থা টিম ম্যানেজমেন্টের। কোচ বদলালেও নির্ভরতার পরিবর্তন হয় না। কিন্তু ব্যাট হাতে সৌম্য সরকার কমই এর প্রতিদান দিতে পেরেছেন। সে কারণেই কি না, এখন শুধু ব্যাটিং নয়, বোলিংয়েও ভীষণ সিরিয়াস তিনি। অলরাউন্ডার হিসেবেই নিজের ভবিষ্যৎ দেখতে পাচ্ছেন সৌম্য।

‘অবশ্যই অলরাউন্ডারের ভূমিকাটা আমার জন্য ভালো হবে। আগে এক দিক নিয়ে চিন্তা করতাম, এখন দুই দিক নিয়ে। অনেক সময় ব্যাটিংটা খারাপ হলে মনে হয়, কিছুই হয়নি। এখন সুযোগ থাকবে বেশি’—কাল বিসিএলের অনুশীলনের ফাঁকে বলছিলেন সৌম্য। গত কিছুদিন ধরে জাতীয় দল থেকে শুরু করে সব পর্যায়ের ক্রিকেটে নিয়মিত বোলিং করছেন। সাফল্যও পাচ্ছেন। তাতে ব্যাটিংটা যেন আড়ালে পড়ে যাচ্ছে খানিক। পাকিস্তান সফরেই যেমন দুটো টি-টোয়েন্টিতে ক্রিজে গেছেন ছয় ও সাত নম্বরে। দুই ম্যাচেই ইনিংসে তখন বাকি ঠিক ১৪ বল। বাংলাদেশ দল যে লোয়ার অর্ডারেই সৌম্যকে ব্যবহার করবে, সেটি এরই মধ্যে স্পষ্ট করেছেন কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। সে আস্থার প্রতিদান পারফরম্যান্সে কতটা দিতে পারেন, তা নিয়ে কৌতূহল অবশ্যই থাকছে সবার। সৌম্য নিজে অবশ্য এখনো তা নিয়ে ভাবছেন না খুব একটা, ‘একটি সিরিজই খেললাম। এখনো তাই সেভাবে চিন্তা করিনি।’

জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের চিন্তা এখন বিসিএল ঘিরে। হুট করেই এই প্রথম শ্রেণির টুর্নামেন্ট শুরুর ঘোষণা দেয় বিসিবি। কাল থেকে মাঠে গড়াচ্ছে বিসিএল। প্রথম টেস্ট খেলতে পাকিস্তান যাওয়ার আগে প্রথম রাউন্ড খেলবেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। এটি সফরে দলকে সাহায্য করবে বলে বিশ্বাস ওয়ালটন মধ্যাঞ্চলে খেলা সৌম্যর, ‘অনুশীলন করে গেলে তো অবশ্যই ভালো হয়। যেহেতু জাতীয় দলের সবাই পাকিস্তানে যাবে, তার আগে যেন সবাই একটি ম্যাচ খেলে। অনুশীলন কম হচ্ছে, এর পরও ম্যাচ অনুশীলনে অন্য রকম একটা ব্যাপার থাকে। সবাই যদি দুটি দিন অনুশীলনের চেয়ে মানসিকভাবে একটু বেশি চিন্তা করে লাল বল নিয়ে, তাহলে মনে হয় কাজ হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা