kalerkantho

বুধবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ১ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

আফ্রিকান স্বাদ-ঘ্রাণ নিয়ে অপেক্ষায় বুরুন্ডি

২২ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আফ্রিকান স্বাদ-ঘ্রাণ নিয়ে অপেক্ষায় বুরুন্ডি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আফ্রিকান ফুটবলের সঙ্গে বাংলাদেশের সংযোগ অনেক দিনের। ঢাকা লিগে খেলা আফ্রিকার ফুটবলাররাই সেই সেতু। কিন্তু পুরোপুরি একটা আফ্রিকান দলের মুখোমুখি হওয়ার নতুন অভিজ্ঞতা হচ্ছে এবার বাংলাদেশের ফুটবলারদের। সর্বশেষ আফ্রিকান নেশনস কাপে খেলা বুরুন্ডির বিপক্ষে আফ্রিকান ফুটবলের সৌরভ পাবে বাংলাদেশ।

ইউরোপের বিভিন্ন লিগে খেলা মূল দলের খেলোয়াড়দের ছাড়াই তারা এসেছে। কিন্তু এই দলটাই তাদের নিকট ভবিষ্যৎ। জসমিন, আমিসিরা কড়া নাড়ছেন দরজায়। তাঁদের ওপর চোখ রাখতে তাই ঠিকই ঢাকায় নেশনস কাপে বুরুন্ডিতে তুলে নেওয়া মূল দলের কোচ অলিভিয়ের নিউয়ানগেকো।

ঢাকায় আসা বুরুন্ডি দলটির সব ফুটবলারই স্থানীয় লিগে খেলা, তবে প্রত্যেকেরই চোখ ইউরোপে। টুর্নামেন্টে এ পর্যন্ত যে দুটি ম্যাচ খেলেছে তারা সেই মানের ঝলক দেখা গেছে তাদের পায়ে। আক্রমণের দিক থেকে অন্তত এ পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সবচেয়ে ভয়ংকর দল তারা। দুই ম্যাচে করেছে ৭ গোল। বাংলাদেশ এই আফ্রিকান দলের বিপক্ষে কাল ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে নামতে গিয়ে সেটি মাথায় রেখেই জামাল ভূইয়া বলছিলেন, ‘ওরা ভীষণ আক্রমণাত্মক দল। সে কারণে অবশ্যই আমাদের রক্ষণে খুব ভালো করতে হবে। তবে খুব বেশি আক্রমণাত্মক হওয়ায় ওদের ডিফেন্স অনেক সময়ই অরক্ষিত হয়ে পড়েছে আমাদের কাছে মনে হয়েছে। কাউন্টার অ্যাটাকে সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে ম্যাচে আমাদের সমান সম্ভাবনা আছে।’

বুরুন্ডির সহকারী কোচ জসলিন বিপফুবুসাই মূলত দলটিকে খেলাচ্ছেন এই টুর্নামেন্টে। সেশেলসের বিপক্ষে ৩-১ গোলে জয়ের পর বলছিলেন, ‘ফাইনালের আগে অন্তত ডিফেন্স নিয়ে আমরা ভাবতে চাই না।’ অর্থাৎ ফাইনালের আগ পর্যন্ত আক্রমণভাগকেই যথেষ্ট মনে করছেন তিনি জয়ের জন্য। যদিও বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের পর কাল শেখ জামাল মাঠে অনুশীলনে ভীষণ সিরিয়াসই দেখা গেছে জসলিনকে। সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা পর্যন্ত বলতে চাননি। সিনিয়র কোচ অলিভিয়ের কিন্তু বলেছেন বাংলাদেশের বিপক্ষে রক্ষণে সতর্ক না হওয়াটা হবে ভুল সিদ্ধান্ত, ‘যেকোনো ভুলই কিন্তু খেলায় পার্থক্য গড়ে দেয়। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ দারুণ দুটি গোল করেছে। কিন্তু সেটি শ্রীলঙ্কার ডিফেন্স ভুল করেছে বলেই বাংলাদেশ সুযোগটা নিয়েছে। বাংলাদেশের আক্রমণভাগ ভুলের সুযোগ নেবেই। স্বাগতিক বলে দর্শক সমর্থনটাও থাকবে ওদের। তাই আমার মনে হয় ভালো একটা ম্যাচই হতে যাচ্ছে এটি। আমাদের জন্যও কঠিন চ্যালেঞ্জ।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা