kalerkantho

মঙ্গলবার । ৫ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

আবারও ভেনাসকে হারালেন ১৫ বছরের গফ

২১ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আবারও ভেনাসকে হারালেন ১৫ বছরের গফ

একজনের বয়স ৩৯ বছর। আরেকজনের ১৫। এবারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে ভেনাস উইলিয়ামস সবচেয়ে বয়সী হলে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড়টি কোকো গফ। সেই লড়াইয়ে হাসলেন গফই। উইম্বলডনের পর অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের প্রথম রাউন্ডে নিজের আদর্শ ভেনাসকে হারালেন ৭-৬, ৬-৩ গেমে। গতকাল শুরু হওয়া অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে বড় কোনো অঘটন নেই আর। রজার ফেদেরার, নোভাক জোকোভিচ, নাওমি ওসাকা, অ্যাশলি বার্টিরা প্রত্যাশিত জয়ে উঠেছেন দ্বিতীয় রাউন্ডে। মেলবোর্নে নেমেছে স্বস্তির বৃষ্টি। দম বন্ধ করা দাবানলের ধোঁয়ার প্রভাব কমেছে তাতে। এ জন্য অবশ্য স্থগিতও করতে হয়েছিল ১৭টি ম্যাচ।

গত উইম্বলডনের প্রথম রাউন্ডে ভেনাস উইলিয়ামসকে হারিয়ে আবির্ভাব কোকো গফের। জয়টা যে হঠাৎ পাওয়া ফল নয় ১৫ বছরের গফ প্রমাণ করলেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে। ওয়াইল্ড কার্ড নিয়ে খেলতে আসা এই কিশোরী আক্রমণাত্মক টেনিসে শুরু থেকে চড়াও ভেনাসের ওপর। প্রথম সেটটা টাইব্রেকারে জয়ের পর দ্বিতীয় সেটে বেগ পেতে হয়নি আর। নিজের প্রিয় খেলোয়াড়টিকে দুইবার হারানোর পর গফের উচ্ছ্বাস, ‘আমার বিশ্বাস হারাতে পারব সব খেলোয়াড়কে। এমন বিশ্বাস নিয়েই গ্র্যান্ড স্লাম খেলতে আসে সবাই। সাফল্যের জন্য কঠোর পরিশ্রম করতে হয়, আমি সেটাই করছি। দারুণ জয়ে টুর্নামেন্টটা শুরু করায় খুশি আমি।’ ২০১৯ সালে র‌্যাংকিংয়ে ৬৮৬ নম্বরে ছিলেন গফ। এ বছর তিনি উঠে এসেছেন ৬৭-তে!

বয়স ৩৮ পার হলেও ছেলেদের এককে রজার ফেদেরার অন্যতম ফেভারিট। বৃষ্টিবিঘ্নিত প্রথম দিনে ২১ গ্র্যান্ড স্লাম জয়ী এই কিংবদন্তি ৬-৩, ৬-২, ৬-২ গেমে সহজে হারিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের স্টিভ জনসনকে। ১১টি ‘এইস’ করা ফেদেরার প্রথম সার্ভিসে পয়েন্ট জিতেছেন ৮২ শতাংশ। বয়স বাড়লেও ধার যে কমেনি জনসনকে বুঝিয়েছেন ভালোভাবে। অন্যতম আরেক ফেভারিট নোভাক জোকোভিচের শুরুটা অত মসৃণ নয়। জেন লেনার্ড স্টার্ফের বিপক্ষে হেরেছেন একটি সেট। শেষ পর্যন্ত তাঁর জয় ৭-৬, ৬-২, ২-৬, ৬-১ গেমে। মেলবোর্নের রড লেভার অ্যারেনায় সাতবার শিরোপার হাসি হেসেছেন জোকোভিচ। এবার নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার অভিযান তাঁর। তাতে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারেন গত বছর ফেদেরারকে হারিয়ে দেওয়া স্তেফানোস সিতসিপাস। এই গ্রিক তরুণ উড়ন্ত শুরুই করেছেন গতকাল। ৬-০, ৬-২, ৬-৩ গেমে বিধ্বস্ত করেছেন সালভাতোরে কারুসেকোকে।

মেয়েদের র‌্যাংকিংয়ের চূড়ায় থাকা অ্যাশলি বার্টি জয় পাননি সরাসরি সেটে। ইউক্রেনের লেইসা সুরেঙ্কো প্রথম সেটটা জিতে যান ৭-৫ গেমে। এরপর প্রবলভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে স্বাগতিক দেশের বার্টি জিতেছেন ৫-৭, ৬-১, ৬-১ গেমে। এরপর তাঁর স্বস্তি, ‘প্রথম রাউন্ডে পরীক্ষা হয়ে গেল কিছুটা। রড লেভার অ্যারেনা ভীষণ প্রিয় আমার। তাড়াতাড়ি বাদ পড়তে চাই না কোনোভাবে।’ অস্ট্রেলিয়ান ওপেন শেষে অবসরের চূড়ান্ত ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন সাবেক নাম্বার ওয়ান ক্যারোলিন ওজনিয়াকি। তাঁর শুরুটা হয়েছে ক্রিস্তি আনকে ৬-১, ৬-৩ গেমে হারিয়ে। এএফপি

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা