kalerkantho

মঙ্গলবার । ৫ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

এদিকে মেসি ওদিকে রোনালদো

২১ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এদিকে মেসি ওদিকে রোনালদো

বার্সেলোনায়  গোল করলেন মেসি, তুরিনে জোড়া গোল করলেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। জিতল বার্সেলোনা, জিতল জুভেন্টাস। রোনালদোর স্পেন ছেড়ে ইতালি পাড়ি জমানোয় কমে গেছে দুই মহারথির প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঝাঁজটা, কমে গেছে মুখোমুখি হওয়ার সম্ভাবনাও। মাঠের বদলে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানেই ইদানীং দেখা হচ্ছে তাঁদের। তবে রবিবার রাতে পৌনে ৯ শ কিলোমিটার দূরের দুই শহরে নিজ নিজ খেলায় গোল করলেন ফুটবলের দুই জীবন্ত কিংবদন্তি। কেকে সেতিয়েনের কোচিংয়ে প্রথম ম্যাচে গ্রানাদার বিপক্ষে বার্সেলোনাকে জেতাল মেসির একমাত্র গোল। তুরিনে পারমার বিপক্ষে জোড়া গোল করে জুভেন্টাসকে জিতিয়েছেন রোনালদো।

ইয়োহান ক্রুইফের দর্শনের অনুসারী সেতিয়েন। ক্রুইফের টোটাল ফুটবলের সঙ্গে স্প্যানিশ সৌরভ মেখে ‘লা মাসিয়া’ হয়ে উঠেছে তারকাদের আঁতুড়ঘর। নিজের প্রথম ম্যাচে, শুরুর একাদশে সেতিয়েন রেখেছিলেন লা মাসিয়ার ছয়জন সাবেক ছাত্রকে, বদলি হিসেবে নামিয়েছেন আরো একজনকে। প্রথম ম্যাচেই বার্তাটা স্পষ্ট, বার্সেলোনাকে বার্সেলোনার দর্শন থেকে আলাদা করতে চান না সেতিয়েন। প্রথম ম্যাচটা যদিও বার্সেলোনা জিতেছে মাত্র ১-০ গোলে, তবে গোটা ম্যাচেই বার্সেলোনার দাপট ছিল সুস্পষ্ট। সেতিয়েন তাঁর প্রথম ম্যাচেই গড়েছেন মৌসুমের নয়া রেকর্ড! ৮২.৬% বল পজেশন আর ১০০৫টি সঠিক পাস, এই মৌসুমে আগের কোনো ম্যাচেই এত পাস খেলা বা এত বেশি সময় বলের দখল পায়ে রাখতে পারেনি বার্সেলোনা। সের্হিও বুশকেত্জ খেলেছেন ১৫৭টি পাস, যার ১৪৫টিই গেছে সঠিক নিশানায়, এটাও চলতি মৌসুমে বুশকেেজর খেলা সবচেয়ে বেশি পাসের রেকর্ড।

বার্সেলোনার মাঠে এসে গ্রানাদা রক্ষণাত্মক ফুটবলই খেলবে এবং তা-ই করে গেছে। মেসি আর আন্তনিও গ্রিয়েজমানকে সবার ওপরে রেখে প্রিয় ৩-৫-২ পদ্ধতিতে খেলিয়েছেন সেতিয়েন, আনসু ফাতির জায়গা হয়েছে মেসির নিচে। প্রায় ৯০ শতাংশ বলের দখল যাদের পায়ে, গোলে শট তাদেরই বেশি হবে। বার্সার গোলমুখী শট ছিল ১৮টা, লক্ষ্যে ছিল ৬টা; কিন্তু শেষ পর্যন্ত গোল হয়েছে একটাই। ৬৯ মিনিটে গ্রানাদার সানচেজ দেখেন লাল কার্ড, তাতে ১০ জনে নেমে আসা গ্রানাদার রক্ষণটা কিছুটা আলগা হয়ে আসে আর এই সুযোগেই আর্তুরো ভিদালের ব্যাকহিল থেকে বল পেয়ে বল জালে জড়ান মেসি। রিকি পুইগ এই মৌসুমে এই ম্যাচেই প্রথম খেলেছেন মূল দলে। প্রতিপক্ষের পা থেকে বল কেড়ে নিয়ে গোলমুখী যাত্রাটা শুরু তাঁর পা থেকেই, যার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি মেসির পায়ে।

সিরি‘এ’তে টানা ৭ ম্যাচে গোল করলেন রোনালদো। তাঁর জোড়া গোলেই পারমাকে ২-১ গোলে হারিয়ে ইন্টার মিলানের সঙ্গে ৪ পয়েন্টের ব্যবধান রাখল জুভেন্টাস। মধ্যবিরতির দুই মিনিট আগে ম্যাচে নিজের প্রথম গোলটা করেন রোনালদো। দ্বিতীয়ার্ধে খেলা শুরুর মিনিট দশেকের মাথায় আন্দ্রেয়াস কর্নেলিয়াসের জোরালো হেডে সমতা ফিরিয়ে আনে পারমা। সমতা ভাঙার দায়িত্বটা আবার নিতে হয় রোনালদোকেই। পাউলো দিবালার পাস থেকে তিন মিনিট পরই গোল করে জুভেন্টাসকে এগিয়ে নেন রোনালদো। ১৪ বছর পর সিরি‘এ’তে টানা ৭ ম্যাচে গোল করার কৃতিত্ব দেখালেন রোনালদো, ২০০৫ সালে টানা ৯ ম্যাচে গোল করেছিলেন ডেভিড ত্রেজেগে। ইতালির ব্যাডবয় বালোতেল্লি ইমেজ ভেঙে বেরিয়ে আসতে পারেননি। ব্রেসিয়াতে খেলা এই ফরোয়ার্ড কালও দেখেছেন লাল কার্ড। বিবিসি, স্কাই

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা