kalerkantho

শনিবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৪ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

রোহিতের ১১৯ রান

সিরিজ জিতল ভারতই

২০ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিরিজ জিতল ভারতই

অবশেষে সেঞ্চুরি পেলেন স্টিভেন স্মিথ। এমনটাই লিখতে হচ্ছে, কারণ আজকের আগে ওয়ানডেতে এই অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানের সবশেষ সেঞ্চুরি ছিল ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে। এরপর এক বছরের নিষেধাজ্ঞার পরও কাছাকাছি সময়ে টেস্টে ৯টি সেঞ্চুরি, যার দুটি ডাবল। অথচ ওয়ানডেতে কাছাকাছি গিয়েও তিন অঙ্কে পৌঁছানো হচ্ছিল না স্মিথের। সবশেষ ম্যাচেই তো আউট হলেন ৯৮ রানে। কাল বেঙ্গালুরুতে সিরিজ নিষ্পত্তির ম্যাচে স্মিথ খেললেন ১৩২ বলে ১৩১ রানের ইনিংস, সঙ্গে মার্নাস লাবুশানেও দেখা পেলেন ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম হাফসেঞ্চুরির। অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস আসলে এই দুজনের রানেরই সমষ্টি!

স্মিথ-লাবুশানের ১২৭ রানের জুটির পরও অস্ট্রেলিয়া ৯ উইকেটে করেছে ২৮৬ রান। রোহিত শর্মার শতরান এবং অধিনায়ক বিরাট কোহলির ৮৯ রানের জ্বলমলে ইনিংসে ভর করে ওই স্কোর ৩ উইকেট হারিয়ে টপকে গেছে স্বাগতিকরা। বেঙ্গালুরুতে পাওয়া ৭ উইকেটের এ জয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজও নিজেদের করে নিয়েছে ভারত।

এই মাঠেই ডাবল সেঞ্চুরি আছে রোহিত শর্মার। এখানেই ভারত-অস্ট্রেলিয়ার দ্বৈরথে রান উঠেছে বানের জলের মতোই। সেখানে স্মিথ ও লাবুশানের তৃতীয় উইকেটে ১২৭ রানের জুটি গড়ার পরও অস্ট্রেলিয়ার রানটা যে তিন শ ছড়ায়নি, সেটার দায় লোয়ার অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের। স্মিথ একা টেনেও ৪৮তম ওভারে গিয়ে আউট হয়ে যান সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে। ২৮৭ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১১০ বলে শতরান করে রোহিত আউট হয়েছেন ১১৯ রানে। কিন্তু অধিনায়ক কোহলির ৮টি চারে সাজানো ৮৯ রানের জ্বলমলে হাফসেঞ্চুরির সঙ্গে শ্রেয়াশ আয়ারের ৩৫ বলে ৪৪* রানের ঝড়ে সহজে লক্ষ্যে পৌঁছে গেছে ভারত। ক্রিকইনফো

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা