kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

সার্বক্ষণিক থাকবেন বোর্ড সভাপতি

২০ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সার্বক্ষণিক থাকবেন বোর্ড সভাপতি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : জাতীয় ক্রিকেট দল বিদেশে গেলেই সঙ্গী হয় বিসিবি পরিচালকদের লম্বা বহর। নিরাপত্তাঝুঁকিতে থাকা দেশ পাকিস্তানের বেলায়ও কি তেমন হবে? বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসানের দাবি, বরাবর যেভাবে থাকেন সবাই, এ সফরেও থাকবেন। আর তিনি নিজে তো দলের সঙ্গে সার্বক্ষণিক থাকার প্রতিশ্রুতিই দিয়েছেন।

পাকিস্তান সফরের আগে তিন দিনের প্রস্তুতি ক্যাম্প শুরু হয়েছে কাল। দুপুরে ক্যাম্পের শুরুর দিকেই বিসিবি সভাপতি মাঠে যান। কথা বলে সাহস দেন ক্রিকেটারদের। সফরের সময় তিনি নিজে থাকবেন বলেও আশ্বস্ত করেন, ‘কাল রাতে জরুরি প্রয়োজনে আমাকে বিদেশ যেতে হচ্ছে। ফিরব ২২ তারিখ। এ কারণে দলের সঙ্গে পাকিস্তান যেতে পারছি না। ওরা তাই ভাবতে পারে যে, আমি যাবই না। ওদের বলেছি, ২৩ তারিখ পাকিস্তানে ওদের সঙ্গে দেখা করব। সাপোর্ট স্টাফ কারা যাচ্ছে সেটি নিয়ে আলোচনা করব। কোন পথে ভ্রমণ করলে সবচেয়ে ভালো হয়, সেটিও দেখব। এ ছাড়া ক্রিকেটারদের অনুভূতি বোঝার চেষ্টা করলাম। বুঝলাম যে ওরা সবাই উদ্দীপ্ত অবস্থায় আছে।’ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সরকারের বিভিন্ন সংস্থার লোক পাকিস্তান যাচ্ছে বলে নিশ্চিত করেন বোর্ড সভাপতি, ‘আমাদের অগ্রবর্তী দল যাবে। এনএসআই থেকে লোক সঙ্গে থাকবে। ডিজিএফআই থেকেও লোক যাওয়ার কথা। আমরা নিজেদের দিক থেকে নিরাপত্তার সর্বোচ্চ ব্যবস্থা রাখার চেষ্টাই করছি।’

সিরিজের আবহে নিরাপত্তার ব্যাপারটি অস্বীকারের উপায় নেই। তবে নাজমুল চান, ক্রিকেটাররা যেন ক্রিকেটেই মূল মনোযোগ দেন। খেলোয়াড়দের স্বস্তি দেওয়ার জন্য তাঁদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক থাকার প্রতিশ্রুতিও বোর্ড সভাপতির, ‘নিরাপত্তা নিয়ে আমরা আলাপ করতে চাইনি। এখানে হালকা কথা উঠেছিল। বলেছি, চিন্তার কিছু নেই। কারণ মাথার মধ্যে এ রকম চিন্তা থাকলে তো সহজাত পারফরম্যান্স আসে না। মানসিক শান্তি ছাড়া ক্রিকেট খেলা কঠিন। এমনিতে টি-টোয়েন্টি ভীষণ স্নায়ুচাপের খেলা। প্রতি সেকেন্ডে খেলা ঘুরে যায়। ওদের এটাই বললাম যে, ঠাণ্ডা মাথায় খেলবে। কিচ্ছু হবে না। আর আমি আসছি। ক্রিকেটারদের সঙ্গে একসাথে থাকব, একসাথে খাব। কোনো অসুবিধা নেই।’

কিন্তু ওই নিরাপত্তা ইস্যুতেই পাকিস্তান সফরে যাচ্ছেন না মুশফিকুর রহিম। বিপিএলে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা এই ব্যাটসম্যানকে বাংলাদেশ মিস করবে নিঃসন্দেহে। তবু সিরিজ জয়ের আশাবাদ বিসিবি সভাপতি নাজমুলের, ‘আমরা মুশফিককে অনেক মিস করব। ও এই দলের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান। সব সময়ই তা-ই ছিল, তবে এবার বিপিএল টি-টোয়েন্টিতে আবার প্রমাণ করেছে যে, সে সেরা। আরেকটি কথা হচ্ছে সাকিব নেই। এর পরও আমার ধারণা এটা ভালো সিরিজ হবে। এখানে জেতা উচিত বাংলাদেশের।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা