kalerkantho

শনিবার । ৯ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৭ জমাদিউস সানি ১৪৪১

বাংলাদেশি যুবাদের অভিযান শুরু আজ

১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাংলাদেশি যুবাদের অভিযান শুরু আজ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : স্বপ্নটা এবার অনেক বড়। অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের শিরোপায় চোখ রেখে দক্ষিণ আফ্রিকা গেছেন বাংলাদেশি যুবারা। প্রস্তুতি ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার মতো প্রবল প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ‘টাই’ করে জানানও দিয়ে রেখেছে নিজেদের সামর্থ্য। আজ আসল মঞ্চে বাংলাদেশের অভিযান শুরু হচ্ছে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে। গ্রুপ ‘সি’তে বাংলাদেশের অপর দুই প্রতিপক্ষ পাকিস্তান ও স্কটল্যান্ড। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াইয়ে পাকিস্তানের চ্যালেঞ্জটা সবচেয়ে কঠিন। তবে অন্য দুই দলকে হালকাভাবে নিতে চাইবে না বাংলাদেশ। সতর্ক হয়ে সেরাটা খেলাই আজ লক্ষ্য আকবর আলীদের।

জিম্বাবুয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে বড় কোনো নাম নয়। তবে তাদের প্রধান কোচ হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় এসেছেন প্রসপার উতসেয়া। সাবেক এই অধিনায়কের অন্যতম সেরা অস্ত্র তাওরাই তুগওয়েতে। জিম্বাবুয়ের হয়ে অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপে খেলেছেন এই অলরাউন্ডার। ১১ বছর বয়সে স্কুল ফুটবল টুর্নামেন্টে দলের ২৩ গোলের ১৯টি করে বার্সেলোনার লা মাসাইয়ার স্কাউটদের নজর কেড়েছিল সে। কাতালান ক্লাবটির পক্ষ থেকে তাঁর মায়ের কাছে পাঠানো হয় প্রস্তাবও। কিন্তু রাজি হননি তাওরাইয়ের মা। এরপর ফুটবল ছেড়ে ক্রিকেটার হয়ে গেছেন তাওরাই। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে নামার আগে চারটি প্রস্তুতি ম্যাচে উইকেট একটি আর রান সব মিলিয়ে ২০। এর পরও ফুটবলার থেকে ক্রিকেটার হওয়া তাওরাইয়ের ওপর আস্থা রাখছেন কোচ প্রসপার উতসেয়া, ‘ও চাইলে বার্সেলোনার একাডেমিতে যেতে পারত। যুক্তরাষ্ট্রে পেয়েছে ফুটবল স্কলারশিপ। ক্রিকেটেও ছেলেটা দুর্দান্ত।’

বাংলাদেশ আলাদা করে ভাবছে না কারো কথা। নিজেদের শক্তির ওপর আস্থা পুরো দলের। এই দলটাই গত দুই বছরে ৩৩টি এক দিনের ম্যাচ খেলে ১৮টিতে জিতেছে। সিরিজ জিতেছে নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কায়। তিনটি জয় আছে ইংল্যান্ডের মাঠে। গত বিশ্বকাপের পর অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে ১০০০ রানের বেশি করেছেন কেবল বাংলাদেশেরই দুজন তৌহিদ হৃদয় ও মাহমুদুল হাসান। নিজের দল নিয়ে এ জন্য আশাবাদী আকবর আলী, ‘আমাদের দল ভালো ছন্দে আছে। এই বিশ্বকাপে বাংলাদেশ কখনো শিরোপা জেতেনি। বর্তমান দলটির সেই সামর্থ্য আছে। তবে আমরা এগোতে চাই প্রতিটা ম্যাচ ধরে।’

গত বিশ্বকাপে নিজেদের গ্রুপে রানার্স-আপ হয়েছিল বাংলাদেশ। এরপর কোয়ার্টার ফাইনালে হেরে যায় ভারতের কাছে। তবে ইংল্যান্ডকে হারানোয় জায়গা হয়েছিল ষষ্ঠ স্থান নির্ধারণী ম্যাচে। তাতে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরে হতে হয়েছিল ষষ্ঠ। এবার তো শিরোপার লক্ষ্যেই রংধনুর দেশে যাওয়া। স্বপ্ন পূরণ হবে তো?

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা