kalerkantho

বুধবার  । ১৮ চৈত্র ১৪২৬। ১ এপ্রিল ২০২০। ৬ শাবান ১৪৪১

নেই কোনো প্রাইজমানি

১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্রীড়া প্রতিবেদক : বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ট্রফির দেখা মিলল অবশেষে। ফাইনালের আগের দিন। খুলনা টাইগার্স ও রাজশাহী রয়ালসের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ও আন্দ্রে রাসেল হাসিমুখে কাল তা উন্মোচন করেন শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে। আজকের বিজয়ী দলের হাতে উঠবে সুদৃশ্য সোনালি ট্রফি। কিন্তু এরপর ট্রফির গন্তব্য কোথায়?

এবারের বিপিএলে নেই কোনো প্রাইজমানি। গতবারও চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স পেয়েছে দুই কোটি টাকা; রানার্স-আপ ঢাকা ডায়নামাইটস ৭৫ লাখ টাকা। ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টুর্নামেন্টে সে অর্থ গেছে মালিকদের কাছে। এবারের বিপিএল যেহেতু হবে ভিন্নভাবে, সে কারণে প্রাইজমানি নেই বলে জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী, ‘বিপিএলে সবগুলো দলই তো বিসিবির মালিকানাধীন। বাইরে থেকে কেবল স্পন্সর যুক্ত করা হয়েছে। সব দল বিসিবির হওয়ার কারণে প্রাইজমানি রাখার সুযোগটাই ছিল না।’

বিপিএলের এ বিশেষ আসরে ট্রফিও তৈরি করা হয়েছে বিশেষভাবে। ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের  পরামর্শে বিসিবি তা বানিয়েছে ‘ইংকারম্যান’ নামক প্রতিষ্ঠান থেকে। যা তৈরিতে খরচ হয়েছে প্রায় ১৫ হাজার পাউন্ড, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ১৭ লাখ টাকার মতো। দলগুলো বিসিবির মালিকানাধীন বলে প্রাইজমানি দেওয়া হচ্ছে না। তাহলে এত অর্থ ব্যয়ে আনা সোনালি ট্রফিটি যাবে কোথায়? মুশফিক বা রাসেল ফাইনাল জয় শেষে এটি নিয়ে উল্লাস করবেন। টিম হোটেলেও নিয়ে যাবেন। কিন্তু এরপর ফেরত দিতে হবে বিসিবিকেই। ‘হোম অব ক্রিকেটে’ বোর্ড কার্যালয়েই থাকবে তা। আবার এটি যেহেতু বঙ্গবন্ধুর নামের বিশেষ বিপিএল, সে কারণে ট্রফিটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় গণভবনে স্থায়ীভাবে রাখতে চাওয়ার ভাবনাও রয়েছে বিসিবির।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা