kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

মুখোমুখি প্রতিদিন

আমরা শিরোপা জিততেই এসেছি

১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমরা শিরোপা জিততেই এসেছি

প্রথম ম্যাচেই শক্তি দেখিয়েছে বুরুন্ডি। ঢাকায় কোনো অনুশীলন ছাড়া মাঠে নেমেই মরিশাসকে উড়িয়ে দিয়েছে ৪-১ গোলে। পোস্টের সামনে ভয়ংকর ছিলেন ১৮ বছর বয়সী জসপিন শিমিরিমানা। সিনিয়র জাতীয় দলে প্রথম খেলতে নেমেই হ্যাটট্রিক করা এই স্ট্রাইকারই কাল মুখোমুখি হয়েছিলেন কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : জাতীয় দলে প্রথম ম্যাচ ছিল, নেমেই হ্যাটট্রিক, দিনটা তো স্মরণীয় হয়ে গেল আপনার?

জসপিন শিমিরিমানা : আমি অনূর্ধ্ব-২০ ও অনূর্ধ্ব-২৩ দলের হয়ে নিয়মিতই গোল করেছি। এটা তাই নতুন না। তবে ভালো লাগছে টুর্নামেন্টটা ভালোভাবে শুরু করতে পেরে। অবশ্য মরিশাসের বিপক্ষে আত্মবিশ্বাসীই ছিলাম আমরা। কারণ এর আগেও অনেকবার ওদেরকে হারিয়েছে আমরা।

প্রশ্ন : তারপরও ঢাকায় পা রেখে কোনো অনুশীলন সেশন না করেই সরাসরি ম্যাচে নামাটা নিশ্চয় সহজ ছিল না আপনাদের জন্য?

জসপিন : তা সত্যি। আমরা এখনো যথেষ্ট ক্লান্ত। আর টুর্নামেন্টের সূচিটাও বেশ ঠাসা। কালকের পরই আবার মাঠে নামতে হবে। তারপরও আশা করি সামনের ম্যাচগুলোতে আমরা আরো ভালো পারফরম্যান্স দেখাতে পারব।

প্রশ্ন : শুরুতেই তিন গোল করে টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ারও তো পথটা খুলে গেল আপনার সামনে...

জসপিন : আমি এখনো এটা নিয়ে কিছু ভাবছি না। সামনের ম্যাচগুলোতে কী হয় দেখা যাক। তবে আমি চাই সব সময় দলের জয়ে অবদান রাখতে।

প্রশ্ন : বুরুন্ডির অনেকেই ইউরোপে খেলেন, সেইদু বেরাহানি তো ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগেও নাম করেছেন, আপনার কী স্বপ্ন?

জসপিন : আমি এখন বুরুন্ডির শীর্ষ লিগেই খেলি। তবে সুযোগ পেলে অবশ্যই ইউরোপে যাব। সেখানে কে না খেলতে চায়, আমিও চাই।

প্রশ্ন : প্রথম দিন সহজ প্রতিপক্ষ ছিল আপনাদের সামনে, তবে টুর্নামেন্টটা অতটা সহজ হবে না নিশ্চয়, যেহেতু ফিলিস্তিনের মতো শক্তিশালী দল রয়েছে...

জসপিন : আমরা অবশ্যই সামনের ম্যাচগুলোতে আরো উন্নতি করতে চাই।

প্রশ্ন : শিরোপাই তো আপনাদের লক্ষ্য?

জসপিন : অবশ্যই এখানে আমাদের শীর্ষ খেলোয়াড়দের অনেকেই আসেনি। কারণ ওরা ইউরোপে লিগ খেলে। এই টুর্নামেন্টের জন্য ওরা ছাড় পায়নি ক্লাব থেকে। এখন আমাদের ওপরই দায়িত্ব দলটাকে চ্যাম্পিয়ন করার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা