kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

চ্যাম্পিয়নস লিগে রোমাঞ্চের রাত

১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চ্যাম্পিয়নস লিগে রোমাঞ্চের রাত

 তারা বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। এবারের গ্রুপ পর্বেও আছে শীর্ষে। এর পরও লিভারপুল নক আউটের আগে ছিটকে যেতে পারে আজ সলসবুর্গের মাঠে হেরে গেলে। পরের রাউন্ডে যেতে অন্তত একটা ড্র চাই ইয়ুর্গেন ক্লপের দলের। তিনবারের চ্যাম্পিয়ন ইন্টার মিলানের জন্য কাজটা আরো কঠিন। মৃত্যুকূপ হয়ে ওঠা গ্রুপ ‘এফ’ থেকে পরের রাউন্ডে যেতে আজ হারাতে হবে বার্সেলোনাকে। আর হেরে গেলে চেয়ে থাকতে হবে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড-স্লাভিয়া প্রাগ ম্যাচের ফলের ওপর। নকআউট নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় লিওনেল মেসি যাচ্ছেন না সান সিরোয়। তাঁর না থাকাটা বাড়তি সুবিধাই দিবে ইন্টারকে। বলে বাড়তি  গতবার চমক দেখিয়ে সেমিফাইনাল খেলা আয়াক্সেরও নিশ্চিত নয় নক আউট। নিজেদের মাঠে ভ্যালেন্সিয়ার কাছে আজ হারলে বিদায়ঘণ্টা বাজতে পারে ডাচ ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটির। নক আউটে যেতে স্টামফোর্ড ব্রিজে লিলকে হারাতে হবে চেলসির।

গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে সলসবুর্গের বিপক্ষে ঘাম ঝরিয়ে জিততে হয়েছে লিভারপুলকে। অ্যানফিল্ডে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল জেতে ৪-৩ ব্যবধানে। ক্লপ দায়িত্ব নেওয়ার পর চ্যাম্পিয়নস লিগের আটটি অ্যাওয়ে ম্যাচে শুধু দুই জয় লিভারপুলের। এমন পরিসংখ্যান বেশ ভয়েরই কারণ অল রেড সমর্থকদের। অবশ্য ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটির চেয়ে ১৪ পয়েন্ট এগিয়ে থাকায় আত্মবিশ্বাস নিয়ে সলসবুর্গের মুখোমুখি হবেন মো সালাহ, সাদিও মানেরা। গ্রুপ ‘ই’তে পাঁচ ম্যাচ শেষে লিভারপুলের পয়েন্ট ১০, নাপোলির ৯, সলসবুর্গের ৭ ও গেঙ্কের ১। আজ নিজেদের মাঠে গেঙ্ককে হারালে নিশ্চিতভাবেই নক আউটের টিকিট পাবে নাপোলি। সে ক্ষেত্রে সলসবুর্গের কাছে হারলেই বিদায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের।

টুর্নামেন্টের শুরু থেকে ‘মৃত্যুকূপ’ বলা হচ্ছিল গ্রুপ ‘এফ’কে। পাঁচ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে এই গ্রুপের শীর্ষ দল হয়ে নক আউটে বার্সেলোনা। ইন্টার মিলান ও বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের পয়েন্ট সমান ৭। আজ সান সিরোয় ছন্দে থাকা কাতালানদের কাছে হেরে গেলে বাদ পড়ার শঙ্কায় থাকবেন লাউতারো মার্তিনেস-রোমেলু লুকাকুরা। কারণ ছিটকে পড়া স্লাভিয়া প্রাগের বিপক্ষে অপর ম্যাচে ফেভারিট বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। গ্রুপের শীর্ষস্থান নিশ্চিত হওয়ায় বার্সেলোনা কোচ এরনেস্তো ভালভের্দে বিশ্রামও দিতে পারেন সেরা একাদশের কয়েকজনকে। লা লিগায় এল ক্লাসিকো আর রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে ম্যাচের আগে কাউকে চোটে পড়তে দেখতে চাইবেন না তিনি। এজন্যই মেসি যাচ্ছেন না সান সিরোয়। লুই সুয়ারেস থাকতে পারেন বেঞ্চে। এই সুযোগটা কাজে লাগাতেই পারে ইন্টার। দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে ইন্টারের একমাত্র জয় ২০০৯-১০ মৌসুমে সেমিফাইনালে নিজেদের মাঠে। এক দশক আগের সেই সাফল্যের খোঁজে আজ ইতালিয়ান এই দল। এএফপি

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা