kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

অন্য ইংল্যান্ড

৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অন্য ইংল্যান্ড

ওয়ানডে ইতিহাসে এবারই প্রথম বিশ্বকাপ জিতেছে ইংল্যান্ড। জোফ্রা আর্চার, ক্রিস ওকস, বেন স্টোকসের মতো বোলারদের গুরুত্বপূর্ণ অবদান তাতে। বিশ্বকাপ জয়ের রেশ কাটিয়ে ইংল্যান্ডের মাটিতে নামতেও সময় লাগেনি বেশি। নিজেদের দেশেই তারা হারিয়েছে অ্যাশেজ। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে তবু ড্র করা গিয়েছিল সিরিজটা, তবে নিউজিল্যান্ডে এসে হারতে হয়েছে ১-০ ব্যবধানে। বিশ্বকাপ জয়ের বছরে একটিও টেস্ট সিরিজ জিততে পারেনি তারা। ১৯৯৯ সালের পর এমন ব্যর্থতা ইংল্যান্ডকে গ্রাস করেনি এত দিন।

ওয়ানডেতে দাপুটে সেই ইংল্যান্ডের টেস্টে বিবর্ণ হওয়ার অন্যতম কারণ প্রতিপক্ষের মাঠে সাদামাটা বোলিং। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ হওয়া দুই টেস্টের সিরিজের পরিসংখ্যান রীতিমতো ভয়াবহ। স্টুয়ার্ট ব্রড, ক্রিস ওকস ও জোফ্রা আর্চার উইকেট পেয়েছেন মাত্র ৪টি করে। স্যাম কারানের শিকার ৬ উইকেট। বেন স্টোকস দেখা পেয়েছেন ২ উইকেটের। প্রতি ১১৫.৭ বল পর ইংলিশ বোলাররা নিয়েছেন ১টি করে উইকেট।

এত খারাপ স্ট্রাইক রেট ইংল্যান্ডের টেস্ট ইতিহাসেই ছিল না কখনো। ১৯৮৯ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ছয় টেস্টের সিরিজে ১১৪.৫ স্ট্রাইক রেটে উইকেট পাওয়াটা ছিল এর আগের লজ্জার রেকর্ড। ব্যর্থতার বৃত্তটা তাই ভাঙতে চান জো রুট, ‘এই সিরিজে অনেক কিছু শিখেছি আমরা। এটা কাজে লাগাতে হবে দ্রুত। দক্ষিণ আফ্রিকায় পরের সিরিজে ভালো করতে কঠোর পরিশ্রম করব আমরা।’ ডেইলি মেইল

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা