kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

অস্ট্রেলিয়ার ছয়ে ছয়

৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অস্ট্রেলিয়ার ছয়ে ছয়

গোলাপি বলে টেস্ট মানেই অস্ট্রেলিয়ার দাপুটে জয়! অপ্রতিরোধ্য টিম পাইনের দলের কাছে নাস্তানাবুদ পাকিস্তানও। অ্যাডিলেডে তারা চার দিনে হারল ইনিংস ও ৪৮ রানের ব্যবধানে। ফলোঅনে পড়া আজহার আলীর দল গতকাল শেষ সেশনের শুরুতে অল আউট ২৩৯ রানে। তাতে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ ২-০ ব্যবধানে। নৈশালোকে এ নিয়ে ছয় টেস্টের সব কটিই জিতল অস্ট্রেলিয়া, এর চারটি আবার অ্যাডিলেডে। তাই সন্তুষ্টি অধিনায়ক টিম পাইনের কণ্ঠে, ‘গ্রীষ্মের শুরুটা দুর্দান্ত হলো। ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে বড় রান চেয়েছিলাম। ওয়ার্নার আর লাবুশানে সেই প্রত্যাশা ছাড়িয়ে অবিশ্বাস্য ব্যাটিং করেছে। বিশ্বের সেরা অফ স্পিনার লায়ন মরা এই পিচে ৫ উইকেট নিয়ে চিনিয়েছে নিজেকে। আর স্টার্ক সব সময়ের মতোই অসাধারণ।’

৩৩৫ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচসেরার পুরস্কার ডেভিড ওয়ার্নারের। এই বাঁহাতি যেভাবে ব্যাট করছিলেন তাতে ব্রায়ান লারার ৪০০ রানের রেকর্ড ভাঙা ছিল সময়ের অপেক্ষা। খোদ লারা পর্যন্ত জানিয়েছেন, ওয়ার্নার রেকর্ডটা ভাঙলে খুশি হতেন তিনি। কিন্তু টিম পাইন ইনিংস ঘোষণা করায় সে সুযোগ পাননি ওয়ার্নার। এ নিয়ে পাইন জানালেন, ‘ইনিংস ঘোষণা নিয়ে বিতর্কের কিছু নেই। আমরা টেস্ট জেতার জন্য খেলেছি আর চেয়েছি র‍্যাংকিংয়ে ওপরে উঠতে।’ বিতর্কে জড়ালেন না ওয়ার্নারও, ‘আরেকবার ব্যাট করতে না হওয়ায় খুশি আমি। গতকাল (পরশু) রাতে ক্লান্ত হয়ে সোফাতে ঘুমিয়ে পড়েছিলাম। এখন প্রস্তুতি নেব নিউজিল্যান্ডের জন্য, কঠিন প্রতিপক্ষ ওরা।’ ক্রিকইনফো

অস্ট্রেলিয়া : ৫৮৯/৩ ডি.। পাকিস্তান : ৩০২ ও ৮২ ওভারে ২৩৯ (মাসুদ ৬৮, আসাদ ৫৭, রিজওয়ান ৪৫; লায়ন ৫/৬৯, হ্যাজেলউড ৩/৬৩, স্টার্ক ১/৪৭)। ফল : অস্ট্রেলিয়া ইনিংস ও ৪৮ রানে জয়ী। সিরিজ : অস্ট্রেলিয়া ২-০ ব্যবধানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ ও সিরিজ : ডেভিড ওয়ার্নার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা