kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

মুখোমুখি প্রতিদিন

বাজে ফুটবলের মাসুল দিয়েছি আমরা

৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাজে ফুটবলের মাসুল দিয়েছি আমরা

অলিম্পিক দল হলেও বাংলাদেশ একাদশের সবার জাতীয় দলে খেলার অভিজ্ঞতা আছে। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের সুবাদে তাদের পারফরম্যান্সেও ছিল ইতিবাচক ধারা। কিন্তু ভুটানের বিপক্ষে শুরুর হারে সব এলোমেলো হয়ে গেছে। কঠিন হয়ে গেছে ফাইনালে ওঠাও। কালকের এই ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের ব্রিটিশ কোচ জেমি ডে বলছেন ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যাশার কথা।

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : এই ম্যাচ নিয়ে যা ভাবা হয়েছিল ঘটেছে ঠিক তার উল্টোটা। ভুটানের সঙ্গে হার দিয়ে শুরু হবে, এই শঙ্কা কি ছিল আপনার মাথায়?

জেমি ডে : ফুটবলে সব হতে পারে। বাজে ফুটবলের মাসুল দিয়েছি আমরা। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচগুলোর সঙ্গে তুলনা করলে এখানে আমরা মোটেও ভালো খেলতে পারিনি। বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্সের যে লেভেল সেটা ছুঁতে পারেনি খেলোয়াড়রা। খেলায় ছিল বলে তাদের কঠিন ট্রেনিংও করানো হয়নি। কিন্তু খেলা দেখে মনে হয়েছে তারা খুব ক্লান্ত, এলোমেলো ফুটবল খেলেছে। ভুল পাস হয়েছে অনেক, মুভমেন্টগুলোতে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে যথেষ্ট ভুল হয়েছে। সচরাচর তাদের যে দাপট থাকে আজ (কাল) সেটা দেখা যায়নি। আমাদের চেয়ে ভুটান ভালো ফুটবল খেলেছে।

প্রশ্ন : তাহলে ভুটান যোগ্য দল হিসেবেই জিতেছে?

জেমি : অন্তত এই ম্যাচে জয় তাদের প্রাপ্য ছিল, বিভিন্ন জায়গায় তারা এগিয়ে ছিল। বাংলাদেশকে চাপে রেখেছে তারা, গোলের ভালো সুযোগও তৈরি করেছে তারা। এত ভুল-ভ্রান্তির মধ্যেও আমরা সুযোগ পেয়েছিলাম দুই অর্ধে দুটো। সেগুলোর একটি কাজে লাগাতে পারলেই হয়তো খেলার ধারা বদলে যেত। আত্মবিশ্বাসী হয়ে খেলতে পারত সবাই।

প্রশ্ন : প্রথম ম্যাচে হারে শুরুর পর ফাইনালে ওঠার ব্যাপারে আপনি কতটুকু আশাবাদী?

জেমি : প্রথম ম্যাচ বাজে গেছে তবে ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ আছে। বিশেষ করে মালদ্বীপের বিপক্ষে কালকের ম্যাচটি (আজ) খুব গুরুত্বপূর্ণ। এখানে নিজেদের ফিরে পাওয়ার সুযোগ আছে। সব ভুলভ্রান্তি কাটিয়ে আমাদের পারফরম্যান্স সেই মানে তুলে নিতে হবে। প্রত্যেকটা জায়গায় আমাদের উন্নতি করতে হবে। এটা জিতলে আশা করি সব কিছু বদলে যাবে।

প্রশ্ন : কিন্তু এখন বাকি তিন ম্যাচই জিততে হবে...

জেমি : আর কোনো উপায় নেই। শুরুর হারের পর আমাদের বাকি তিন ম্যাচ জেতা ছাড়া অন্য চিন্তার সুযোগ নেই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা