kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৭ রবিউস সানি ১৪৪১     

নাসিম শাহকে ছাপিয়ে ওয়ার্নার

২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নাসিম শাহকে ছাপিয়ে ওয়ার্নার

ম্যাচের আবহে নাসিম শাহকে নিয়ে তুমুল মাতামাতি। ১৬ বছরেই কোনো ফাস্ট বোলারের টেস্ট অভিষেক হলে অমনটা তো হবেই! অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ব্রিসবেন টেস্টের দ্বিতীয় দিন বোলিংয়ের সুযোগ পান তিনি। ঘণ্টায় ১৪৫ কিলোমিটারের গতিতে বল ছুড়েছেন নিয়মিত। ডেভিড ওয়ার্নারকে ‘আউট’ও করেছিলেন। কিন্তু সেটি ‘নো বল’ হওয়ায় নাসিমের উল্লাসটা হয়েছে স্বল্পস্থায়ী।

ঠিক উল্টো অবস্থা অভিজ্ঞ ওয়ার্নারের। বল টেম্পারিং কাণ্ডে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে টেস্টে ফিরেছেন অ্যাশেজে। সেখানে ১০ ইনিংসে ৯.৫ গড়ে ৯৫ রান করেন মোটে। তবু তাঁর ওপর আস্থা রাখেন নির্বাচকরা। ঘরের মাঠে প্রত্যাবর্তনে সে আস্থার প্রতিদান কী দারুণভাবেই না দিলেন ওয়ার্নার। তিনি দিন শেষ করেছেন অপরাজিত ১৫১ রানে। অস্ট্রেলিয়াও চলে যাচ্ছে পাকিস্তানের ধরাছোঁয়ার বাইরে। সফরকারীদের ২৪০ রানের জবাবে এক উইকেটে ৩১২ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে স্বাগতিকরা।

টস জিতে ব্যাটিং নেওয়া পাকিস্তানকে প্রথম দিনই অল আউট করে দেয় অস্ট্রেলিয়া। অথচ দ্বিতীয় দিনে সাকল্যে তাদের অর্জন মোটে এক উইকেট। ওয়ার্নার-জো বার্নস ওপেনিং জুটিতে উঠে যায় ২২২ রান। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৩ রান দূরে থাকা অবস্থায় ইয়াসির শাহকে সুইপ করতে গিয়ে বোল্ড হয়ে যান বার্নস। ৯৯ রান নিয়ে চা বিরতিতে যাওয়া ওয়ার্নার বিরতির পর দ্বিতীয় ওভারে ইয়াসিরের বলে সিঙ্গেল নিয়ে পূরণ করেন সেঞ্চুরি। টেস্টে তাঁর ২২তম শতরান; ২১তম সেঞ্চুরির প্রায় দুই বছর পর। বার্নসের আউটের পর মার্নাস লাবুশানের (৫৫*) সঙ্গে আরেকটি বড় জুটি গড়ে তোলেন ওয়ার্নার। দিনের শেষ দিকে আরেকবার অল্পের জন্য রক্ষা হয় তাঁর। এবার ইমরান খানের বল অফ স্টাম্পে হয়তো লেগেছিলও, কিন্তু বেলস পড়েনি। ডাবল সেঞ্চুরির সৌরভ নিয়ে তাই তৃতীয় দিনে মাঠে নামবেন আজ ওয়ার্নার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (দ্বিতীয় দিন শেষে): পাকিস্তান : ২৪০। অস্ট্রেলিয়া : ৮৭ ওভারে ৩১২/১ (ওয়ার্নার ১৫১*, বার্নস ৯৭, লাবুশানে ৫৫*; ইয়াসির ১/১০১)।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা