kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

আজ বাংলাদেশের পরীক্ষা

স্নায়ুক্ষয়ী ম্যাচ জিতে ফাইনালে পাকিস্তান

২১ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্নায়ুক্ষয়ী ম্যাচ জিতে ফাইনালে পাকিস্তান

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ৫ উইকেট হাতে নিয়ে শেষ পাঁচ ওভারে প্রয়োজন ২৬ রান—এমন ম্যাচ কোনো দল হারে নাকি! কিন্তু লড়াইটা যখন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত-পাকিস্তানের, তখন স্নায়ুর চাপে সাজানো চিত্রনাট্য তছনছ হতে কতক্ষণ! কাল শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ইমার্জিং টিমস কাপের সেমিফাইনালে হলো ঠিক তা-ই। জয়ের মতো অবস্থায় থেকেও শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানের কাছে ৩ রানে হেরে গেছে ভারত।

আজ দ্বিতীয় সেমিফাইনালে বাংলাদেশ ইমার্জিং দল মুখোমুখি হবে আফগানিস্তানের। বিজয়ী দল পরশুর ফাইনালে খেলবে পাকিস্তানের বিপক্ষে।

অথচ কালকের প্রথম সেমিফাইনালে জয় একেবারে হাতের মুঠোয় ছিল ভারতের। ৫ উইকেট হাতে রেখে ৩০ বলে ২৬ রান, ৪ উইকেট নিয়ে ২৪ বলে ২২ রান, ৩ উইকেট নিয়ে ১২ বলে ১৫ রান, এমনকি শেষ ছয় বলে ৮ রানই-বা অমন কী কঠিন! কিন্তু শেষ ওভারে আরো এক উইকেট খুইয়ে ৪ রানের বেশি নিতে পারেনি ভারত। পাকিস্তানের চেয়ে ৩ রান কমে থেমে যায় তাদের ইনিংস। থেমে যায় টুর্নামেন্টের পথচলা।

জয়ের মতো অবস্থায় থেকেও শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানের কাছে ৩ রানে হেরে গেছে ভারত। আজ দ্বিতীয় সেমিফাইনালে বাংলাদেশ ইমার্জিং দল মুখোমুখি হবে আফগানিস্তানের। বিজয়ী দল পরশুর ফাইনালে খেলবে পাকিস্তানের বিপক্ষে।

আগে ব্যাটিং করা পাকিস্তান ওপেনিং জুটিতে ৯০ রানে পায় বড় স্কোরের ভিত। তবে ওমর ইউসুফ (৬৬) ছাড়া অন্য কেউ ফিফটি না করলে ৭ উইকেটে ২৬৭ রানের বেশি তুলতে পারেনি। জবাবে ভারত ছিল জয়ের কক্ষপথে। সানভির সিং (৭৬), বেলুর শারাথ (৪৭), আরমান জাফরের (৪৬) ইনিংসগুলোতে। কিন্তু শেরেবাংলার শেষবেলায় যে স্নায়ুর জয় হলো। সে কারণেই তো টুর্নামেন্টে ভারতকে টপকে পাকিস্তান ফাইনালে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা