kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

সবার আগে সাঁতারুরা নেপালে

১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সবার আগে সাঁতারুরা নেপালে

ক্রীড়া প্রতিবেদক : গত এসএ গেমসের সবচেয়ে সফল ডিসিপ্লিন সাঁতার দলই এবার সবার আগে পৌঁছেছে নেপালে। গতবার গুয়াহাটিতে বাংলাদেশের চারটি সোনার দুটিই এনে দিয়েছিলেন সাঁতারু মাহফুজা খাতুন। তিনি অবশ্য এবারের কন্টিনজেন্টেই নেই। তাঁর ইভেন্ট ব্রেস্ট স্ট্রোকে এবার আশা রোমানা আক্তারকে নিয়ে। আশায় আছেন প্যারিসে প্রশিক্ষণ নিয়ে ফেরা আরিফুল ইসলাম আর লন্ডনপ্রবাসী জুনায়না আহমেদও।

তবে নেপালে এবার বাড়তি দুটি চ্যালেঞ্জ সাঁতারুদের—এর একটি উচ্চতা, অন্যটি পুল। ১৪০০ মিটার উচ্চতায় স্বাভাবিক পারফরম্যান্স সম্ভব নয় বিধায় ঢাকায় এসেই জাপানি কোচ তাকেও ইনোকি প্রথমেই চাহিদাপত্র দিয়েছিলেন গেমসের বেশ আগে থেকে সেখানে গিয়ে অভ্যস্ত হয়ে নেওয়ার। এরপর যোগ হয় ২৫ মিটার পুলের বিষয়টি। সারা বিশ্বেই সাঁতার হয় ৫০ মিটার পুলে, বাংলাদেশি সাঁতারুরাও তাতেই অভ্যস্ত। কিন্তু নেপালে এবারের আসরটি হচ্ছে ২৫ মিটার পুলে। এই অনভ্যস্ততা কাটাতেও কাঠমাণ্ডুতে আগেভাগে যাওয়ার দাবি ছিল সাঁতারুদের। তাকেও ইনোকি তাতে তেমন সাড়া না পেয়ে নিজেই উদ্যোগী হয়েছিলেন প্রায় একই রকম উচ্চতার কুনমিনে সাঁতারুদের প্রশিক্ষণে নিয়ে যাওয়ার। কিন্তু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় তিনিই চলে গেছেন। তবে সাঁতার ফেডারেশন শেষ পর্যন্ত উদ্যোগী হয়ে নেপালেই মাহফিজুর, আরিফুলদের বাড়তি প্রশিক্ষণের সুযোগ তৈরি করেছে। সেই লক্ষ্যে কাল রাতেই নেপাল গেছে দলটি। গত এসএ গেমসে দুটি ব্রোঞ্জ জেতা সাঁতারু জুয়েল আহমেদ তাতে সন্তুষ্ট, ‘আমরা এমনটাই চাইছিলাম, যেন গেমসের বেশ কিছুদিন আগে গিয়ে সেখানকার উচ্চতা আর ২৫ মিটার পুলের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারি। আশা করি ওখানে দুই সপ্তাহের প্রস্তুতিতে আমাদের ফল আরো ভালো হবে।’ গতবার মাহফুজার দুটি সোনা ছাড়া ১৬টি ব্রোঞ্জ জেতে বাংলাদেশ। এবার সেই পদকের রংগুলোই পরিবর্তনের আশা সাঁতারুদের। ফ্রি স্টাইল সাঁতারে মাহফিজুর একাই জিতেছিলেন ৭ ব্রোঞ্জ। তিনি এবার মরিয়া নেপালে আরো ভালো কিছু করতে।

ওআইসির বৃত্তি নিয়ে ফ্রান্সে এক বছরের বেশি সময় প্রশিক্ষণ নিয়েছেন আরেক সাঁতারু আরিফুল ইসলাম। তাঁকে ঘিরেও এবার অনেক আশা। কাল দেশ ছাড়ার আগে আরিফুলও আশার কথা শুনিয়ে গেছেন, ‘আমি আমার সেরাটা দেব ওখানে। আশা করি সবচেয়ে ভালো কিছুই আনতে পারব দেশের জন্য।’ লন্ডনের স্থানীয় একটি সুইমিং ক্লাবে সাঁতার শেখা জুনায়না ঢাকায় এসে জুনিয়র ও সিনিয়র দুটি জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপেই পুলে ঝড় তুলেছেন। নেপালে দেশের পতাকা বুকে আন্তর্জাতিক আসরে তাঁকে নিয়েও বড় আশা। জুনায়না লন্ডন থেকেই যাবেন কাঠমাণ্ডুতে। দেশের আর সব সাঁতারু জাপানি কোচ তাকেও ইনোকির কাছেই প্রশিক্ষণ নিচ্ছিলেন, সোনার স্বপ্নও দেখাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু ক্যাম্পে নারী সাঁতারুদের ওপর শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় মানসিক আঘাত পেয়ে তিনি বাংলাদেশ ছেড়েছেন। সাঁতারুদের প্রস্তুতিতে এটা আবার ছিল বড় ধাক্কা। তাকেও ইনোকির সহকারী আরেক জাপানি ইউরোকাজো তামায়ামা এরপর মূল কোচের দায়িত্ব নেন।

বাংলাদেশ দল

মাহফিজুর রহমান, মাহমুদুননবী, আসিফ রেজা, জুয়েল আহমেদ, সুকুমার রাজবংশী, মামুনুর রশিদ, নূর আলম, ফয়সাল আহমেদ, পলাশ চৌধুরী, জামরুল মিয়া, আরিফুল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম, অনিক ইসলাম, সোনিয়া আক্তার, সোনিয়া খাতুন, সুরাইয়া আক্তার, নাঈমা আক্তার, ছুম্মা খাতুন, রোমানা আক্তার, খাদিজা আক্তার, মুক্তি খাতুন ও জুনায়না আহমেদ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা