kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

বড় হারেই শেষ মাসকাট মিশন

১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বড় হারেই শেষ মাসকাট মিশন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : খেলাটা ওমানেই হয়েছে তো! মাসকাটের সুলতান কাবুস স্টেডিয়ামের গ্যালারি দেখে তা বোঝার উপায় ছিল না। সেখানে লাল-সবুজ দর্শকের দাপুটে উপস্থিতি। কিন্তু প্রবাসী বাঙালিদের এই ফুটবলপ্রেম অপ্রাপ্তির হাহাকারেই শেষ হয়েছে। বাংলাদেশ যে ওমানের মাটিতে ৪-১ গোলে হেরে গেছে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে।

শক্তিমত্তা, র‌্যাংকিং বিবেচনায় অস্বাভাবিক নয় স্কোরলাইন। তবে এই বিশ্বকাপ বাছাইয়েই জেমি ডের অধীনে আগের ম্যাচগুলোতে যেমন আশাজাগানিয়া পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন ফুটবলাররা, তাতে এই হার প্রত্যাশার পিঠে বড় রকম ধাক্কাও। সূত্রটা জানাই ছিল, যেকোনো উপায়ে আটকাতে হবে র‌্যাংকিংয়ে ১০০ ধাপ এগিয়ে থাকা দলটিকে। এই ফর্মুলায় খেলে অভ্যস্তও জামাল ভূঁইয়ারা। তাতে প্রথমার্ধ পর্যন্ত ঠিকঠাকই ছিল, স্কোরলাইন ০-০। দ্বিতীয়ার্ধে খোলস ছেড়ে প্রাপ্তির আশায় এবার ওমানিদের অর্ধে চড়ে বেড়ানোরও আশা। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর মিনিট দুয়েকের মধ্যেই গোল হজম করে বাংলাদেশ ম্যাচে শুধু না, মানসিকভাবেও কিছুটা পিছিয়ে পড়ে। শুরু হয় পিছিয়ে থেকে ম্যাচে ফেরার লড়াই। তাতে চাপ বাড়ে, সেই সুযোগে ওমান ব্যবধান বাড়ায়। ৬৮ ও ৭৮ মিনিটে আরো দুই গোল করে স্কোরলাইন ৩-০ করে ফেলে তারা। ৮১ মিনিটে বিপলু আহমেদের গোলেও তাই আশা জাগে না। ততক্ষণে স্টেডিয়াম ছাড়তে শুরু করেছেন প্রবাসীরা। ৯০ মিনিটে আরো এক গোলে হালি পূর্ণ করে এই গ্রুপে দ্বিতীয় স্থান আরো সুসংহত করে ওমান।

বাংলাদেশ ৪-১-৪-১ ফরমেশনে খেলা শুরু করেছিল। তাতে রক্ষণকাজ শুরু হয় স্ট্রাইকার নাবিব নেওয়াজ থেকে। ওমান স্বাভাবিকভাবে ডিফেন্স লাইন ওপরে তুলে খেলছিল দুজন স্ট্রাইকার নিয়ে। তবে ম্যাচে গোলপোস্টে প্রথম শটটা নিয়েছিল বাংলাদেশেই। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলা গোলরক্ষক আলী আল হাবসির পরীক্ষা নিয়েছিলেন। স্বাগতিকরা বাঁ দিক দিয়ে বারবার বক্সে ঢোকার চেষ্টা করছিল। তবে প্রথমার্ধে সেই অর্থে পরিষ্কার কোনো সুযোগই তৈরি করতে পারেনি প্রতিপক্ষ। বিরতির পর ডান দিক দিয়ে একটি আক্রমণেই গোলমুখ খুলে ফেলে তারা। বক্সের ওপর থেকে বাঁ পায়ের চমৎকার প্লেসিং শটে লক্ষ্য ভেদ করেন মোহসিন আল খালদি। ৬৮ মিনিটে দ্বিতীয় গোলটি ডান দিক থেকেই পাঠানো ক্রসে, সাইডভলিতে তা জালে জড়িয়ে দিয়েছে রাবিয়া আল মান্দার। ৭৮ মিনিটে বদলি নামা আরশাদ আল আলাউয়ি ৩-০ করেছেন বক্সের একটু বাইরে থেকে নেওয়া ভলিতে। ওমানি ডিফেন্সের ভুলের সুযোগে ৩-১ করা বিপলুর গোলটিও বক্সের ভেতর থেকে চমৎকার ভলিতে। ম্যাচের ফলে তা প্রভাব রাখতে পেরেছে সামান্যই, শেষ মিনিটে জটলার ভেতর থেকে গোল করে ব্যবধান আবার বাড়িয়ে নিয়েছেন আমরান আল হাইদি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা